বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
100 জন দেখেছেন
"হাজ্জ" বিভাগে করেছেন (11 পয়েন্ট)
সম্পাদিত করেছেন
আমার মা হজ্জের নিয়ত করেছেন। হাদিস অনুযায়ী মাহরাম ছাড়া মহিলাদের জন্য হজ্জ ফরজ হবে না। মাহরাম বলতে বুঝানো হয়েছে, স্বামী এবং যাদের সাথে বিয়ে করা হারাম এমন পুরুষ। কিন্তু আমার মা এর এমন কেউই নাই। তিনি যাচ্ছেন বান্ধবীর সাথে। এমনকি বান্ধবীর স্বামীও যাচ্ছেন না। এমতাবস্থায় প্রশ্ন হচ্ছে, আম্মুর উপর কি হজ্জ ফরয হয়েছে? যেহেতু মাহরাম ছাড়া হজ্জ ফরজ না।
করেছেন (5,716 পয়েন্ট)
আপনি নিজেও আপনার মায়ের মাহরাম পুরুষ, তাহলে এমন কেন বলছেন যে কেউই নেই? আপনার মায়ের কি ভাই, চাচা, মামা, ভাতিজা, ভাগনে কেউ নেই?

2 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (8,934 পয়েন্ট)
উমরাহ হজ্জ বা অন্য কোন ইবাদতের সফর হলেও কোন মহিলার একাকিনী সফর বৈধ নয়। যেহেতু মহানবী (সাঃ) বলেছেন, কোন পুরুষ যেন কোন বেগানা নারীর সঙ্গে তার সাথে এগানা পুরুষ ছাড়া অবশ্যই নির্জনতা অবলম্বন না করে। আর মাহরাম ব্যতিরেকে কোন নারী যেন সফর না করে।

এক ব্যক্তি আবেদন করল, হে রাসুল! আমার স্ত্রী হজ্জ পালন করতে বের হয়েছে। আর আমি অমুক অমুক যুদ্ধে নাম লিখিয়েছি। তিনি বললেন, যাও, তুমি তোমার স্ত্রীর সঙ্গে হজ্জ কর। (বুখারী ও মুসলিম)

জনাব! মহিলাদের জন্য মাহরাম ব্যতীত একাকী সফরে যাওয়া জায়েজ নয়। এ ব্যাপারে সকল ইমাম একমত। তবে মহিলারা মাহরাম ছাড়া হজ্জ করতে পারবে কিনা- এ প্রসঙ্গে ইমামদের মাঝে মতভেদ রয়েছে।

রাসুল (সাঃ) বলেছেন, কোনো মহিলার জন্য মাহরাম না পাওয়ার কারণে হজ্জ সফর থেকে বিরত থাকা জায়েজ নয়। তার উচিত কোনো মহিলা দলের সাথে হজ্জ সম্পন্ন করা। (সুনানে আবু দাউদ)

যেসব হাদীসে মহিলাদের জন্য সফর সঙ্গী হিসেবে মাহরাম বা স্বামী সঙ্গে থাকার কথা বলা হয়েছে তার মূল উদ্দেশ্য হলো, ফিতনা থেকে রক্ষা পাওয়া। কোনো বিশ্বস্ত মহিলা দলের সাথে যাত্রা করলে এ উদ্দেশ্য পূর্ণ হয়ে যাবে। বিশ্বস্ত মহিলা দলের ব্যাখ্যা ইমাম শাফেয়ী এভাবে করেছেন, দলের কিছু সংখ্যক মহিলা নির্ভরযোগ্য হতে হবে এবং তাদের সাথে মাহরাম থাকতে হবে। তবেই এ দলের সাথে একজন মাহরামহীন মহিলা হজ্জ সফরে যেতে পারবে। (আসান ফেকাহ)

তবে এমন কোনো পুরুষ দলের সাথে মহিলারা যেতে পারবেন না, যে দলে কয়েকজন মহিলা নেই বা নিজ মাহরাম পুরুষ নেই। (আল উম্ম)

আদী ইবনে হাতেম (রাঃ) হতে বর্ণিত, রাসুল (সাঃ) বলেছেন, হে আদী! তোমার জীবনকাল যদি দীর্ঘ হয়, তুমি অবশ্যই দেখতে পাবে, ইরাকের হীরা অঞ্চল থেকে একজন মহিলা একাকী উটের হাওদায় বসে কাবা তাওয়াফ করবে এবং সে আল্লাহ ছাড়া কাউকে ভয় পাবে না। (বুখারী ও মুসলিম)

অন্য বর্ণনায় এসেছে, সে মহিলা আল্লাহর ঘর তাওয়াফের নিয়তে বা উদ্দেশে একাকী আসবে তার সাথে অন্য কেউ থাকবে না। (ফিকহুন্নিসা।)

এ হাদীসে ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়েছে যে, ইসলামের কল্যাণে মানুষের জান মালের নিরাপত্তা এমন পর্যায়ে পৌঁছবে, মহিলারা একাকী হজের নিয়তে সফর করবে তাদের কোনো অসুবিধা হবে না।। আর এর বৈধতাও এই হাদীস দ্বারাই প্রমাণীত হয়েছে।

আপনার আম্মুর বান্ধবীর স্বামীও যেহেতু যাচ্ছেন না। এমতাবস্থায় আপনার আম্মুর হজ্জে না যাওয়াই উত্তম।
0 টি পছন্দ
করেছেন (816 পয়েন্ট)
আপনি যেহেতু আপনার মায়ের মাহরাম তাই আপনার কারণে আপনার মায়ের উপর হজ্ব ফরজ হয়েছে। কিন্তু কোন মহিলার জন্য তার মাহরাম ছাড়া হজ্বের যাওয়া জায়েজ নয়।তাই আপনার মা আপনাকে রেখে হজ্ব করতে গেলে গোনাহগার হবেন। কিন্তু হজ্ব করলে আদায় হবে।

প্রমাণঃরদ্দুল মুহতার 2খন্ড 465 পৃঃ

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর
06 এপ্রিল 2014 "ইসলাম" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন salehahmed (labib) (19,049 পয়েন্ট)
2 টি উত্তর
03 অগাস্ট "হাজ্জ" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন S.M.Ruman (63 পয়েন্ট)

331,478 টি প্রশ্ন

422,282 টি উত্তর

131,124 টি মন্তব্য

181,099 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...