বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
120 জন দেখেছেন
"ইসলাম" বিভাগে করেছেন (9 পয়েন্ট)
আসসালামু আলাইকুম। আমি একটি কথা জানতে চাই আল্লাহ তায়ালা তালাকদাতাকে পছন্দ করেন? আর তালাকটা কি  আল্লাহ তায়ালা পছন্দ করেন, নাকী পছন্দ করেন না? আর কেউ যদি বার বার তালাক নামটা উচ্চারণ করে তাতে কি আল্লাহ তায়ালা নারাজ হন? এতে কি গুনাহ হয়?

3 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (321 পয়েন্ট)
তালাক শরীয়তের একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। নবী (সাঃ) তালাক সম্পর্কে বলেছেন তালাক অপেক্ষা ঘৃণার জিনিস আল্লাহ তায়ালা আর সৃষ্টি করেননি। হযরত আলী (রাঃ) হতে বর্ণিত নিম্নোক্ত বাণী হতে তালাকের ভয়াবহতা উপলদ্ধি করা যায়।
তোমরা বিয়ে কর কিন্তু তালাক দিয়ো না কেননা, তালাক দিলে তার দরুন আল্লাহর আরশ কেঁপে উঠে।
করেছেন (6,303 পয়েন্ট)
জনাব? হাদিস এর রেফারেন্স দিন!
করেছেন (3,779 পয়েন্ট)
হাদীসটা কি কোন কিতাব থেকে দিয়েছেন? দিলে কিতাবের নাম, খণ্ড ও পৃষ্ঠা নাম্বার উল্লেখ করুন।
0 টি পছন্দ
করেছেন (735 পয়েন্ট)
তালাক ইসলামে সবচেয়ে নিম্নমানের হালাল।এর অর্থ হচ্ছে যথাসম্ভব তালাক এড়িয়ে চলা। হাদিসে এসেছে أبغض الحلال الى الله الطلاق আবু দাউদ শরীফ হাদীস নং ২১৭৮

তবে তালাক শব্দ বারবার বললে গোনাহ হবেনা। কিন্তু না বলা অনেক ভালো। কারণ অনেক সময় মুখ ফসকে বের হয়ে যেতে পারে যার দরুন পরে আফসোস করতে হবে।

তালাক শব্দ বারবার বললে আল্লাহ নারাজ হ‌ওয়ার কথা পাওয়া যায়না।
করেছেন (9 পয়েন্ট)
ধরেন মুখ ফসকে না। রাগের মাথায় মুখ দিয়ে হাজার বার তালাক শব্দটি উচ্চারণ করলে তালাক হয়ে যায়?
করেছেন (735 পয়েন্ট)
তালাক না দেয়া পর্যন্ত তালাক হবেনা।
করেছেন (9 পয়েন্ট)
আরেকটু জানতে চাই যদি ইচ্ছাকৃতভাবে হাজার বার বা লক্ষ বার বলি যে তোমাকে তালাক দিবো তাতে কি তালাক কবুল হবে? 
করেছেন (735 পয়েন্ট)
যতক্ষণ আপনি বলবেন না যে,তালাক দিলাম ততক্ষন তালাক হবেনা।দিবো বলার দ্বারা তালাক হয়না।
0 টি পছন্দ
করেছেন (6,303 পয়েন্ট)

ইসলামে অপ্রয়োজনে তালাক প্রদান করার হুকুম নেই। ইহা একটি অপছন্দনীয় কাজ।

আল্লাহ তাআলা বলেন, তোমরা তাদের সাথে সৎভাবে জীবন যাপন কর। (সূরা নিসাঃ ১৯)

তিনি আরো বলেন, তোমরা যতই সাগ্রহে চেষ্টা কর না কেন, স্ত্রীদের প্রতি সমান ভালোবাসা তোমরা কখনই রাখতে পারবে না। তবে তোমরা কোন এক জনের দিকে সম্পূর্ণভাবে ঝুঁকে পড়ো না এবং অপরকে ঝুলন্ত অবস্থায় ছেড়ে দিও না। আর যদি তোমরা নিজেদের সংশোধন কর ও সংযমী হও, তবে নিশ্চয় আল্লাহ চরম ক্ষমাশীল, পরম দয়ালু। (সূরা নিসাঃ ১২৯)

মহানবী (সঃ) বলেন, যে স্ত্রীলোক অকারণে তার স্বামীর নিকট থেকে তালাক চাইবে, সে স্ত্রীলোকের জন্য জান্নাতের সুগন্ধও হারাম হয়ে যাবে। (আবূ দাঊদঃ ২২২৬, তিরমিযী ১১৮৭, ইবনে মাজাহ ২০৫৫)

হাদীসে এসেছে, আল্লাহ তাআলার নিকট সবচেয়ে ঘৃণ্য মুবাহ তথা জায়েয বিষয় হলো, তালাক প্রদান।


যথার্থভাবে বা কৌতুকার্থে তালাক দিলেও তা পতিত হয়। রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেনঃ তিনটি বিষয়ে প্রকৃতপক্ষে বললেও এবং ঠাট্টাচ্ছলে বললেও যথার্থ বলে বিবেচিত হবেঃ বিয়ে, তালাক ও রাজআত। তাই বারবার তালাক উচ্চারণ করা থেকে বিরত থাকতে হবে। তা বলা গুনাহের কাজ।

করেছেন (9 পয়েন্ট)
ভাই গোনাহের কাজ মানলাম। কিন্তু যদি রাগের মাথায় বার বার বলি যে ডিভোস দিবো এতে কি তালাক হয়ে যায়?
করেছেন (3,779 পয়েন্ট)
ডিভোর্স দিব বা তালাক দিব হাজার বার বললেও তালাক পতিত হবে না। তবে এ ধরনের কথা বলা থেকে সাবধান! কারণ শয়তান সবসময় মানুষের সন্নিকটে থেকে কুপ্ররোচনা দিতেই থাকে। এভাবে বলতে বলতে কখন আপনার মুখ দিয়ে “তালাক দিলাম” কথাটি বের করে ছাড়বে আপনি নিজেও বুঝতে পারবেন না। অতএব সাবধান!!!
করেছেন (9 পয়েন্ট)
ভাই এর মানে আপনি বুঝাতে চাচ্ছেন যে হাজার বার যদি বলি তালাক দিবো তাতে তালাক হবে না তাই ত? তালাক করা না পর্জন্ত মুখে বল্ললে তা তালাক হবে না তাই ত ভাই?
করেছেন (3,779 পয়েন্ট)
দিব বা করবো এসব শব্দ ভবিষ্যত বুঝায়। এতে তালাক পড়ে না। তবে তালাক হলো স্পর্শকাতর বিষয়; এটা সম্বন্ধে এভাবে ম্যাসেজের মাধ্যমে সবকিছু বোঝানো সম্ভব না, উচিতও না। তাই আপনি আপনার নিকটস্থ কোন নির্ভরযোগ্য ফতওয়া বিভাগে যোগাযোগ করুন। তাতে সব বিষয় ভালোভাবে বুঝিয়ে দিবে।
করেছেন (9 পয়েন্ট)
Vai আমি জতটুক জানতে চেয়েছি ততটুক ভল্লেই হবে। প্লিজ ভাই ৷ ধরেন যে আমি তোমাকে তালাক দিবো হাজার বার বললাম এতে কী তালাক কবুল হবে কী না এটা জানতে চেয়েছি?
টি উত্তর

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

2 টি উত্তর
10 ফেব্রুয়ারি 2016 "ধর্ম ও আধ্যাত্মিক বিশ্বাস" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Remone (-36 পয়েন্ট)

294,575 টি প্রশ্ন

381,284 টি উত্তর

115,273 টি মন্তব্য

161,845 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...