বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
382 জন দেখেছেন
"ইসলাম" বিভাগে করেছেন (11 পয়েন্ট)
বিভাগ পূনঃনির্ধারিত করেছেন

2 উত্তর

+1 টি পছন্দ
করেছেন (10,632 পয়েন্ট)
নির্বাচিত করেছেন
 
সর্বোত্তম উত্তর
মনে আল্লাহ সম্পর্কে অনিচ্ছাকৃত খারাপ চিন্তা আসলে গুনাহ হবে না। কেননা, বান্দার সুচিন্তাগুলো লিখা হয় কিন্তু কুচিন্তাগুলো লিখা হয় না।

আবূ বকর ইবনে আবূ শায়বা, যুহায়র ইবনে হারব ও ইসহাক ইবনে ইবরাহীম (রহঃ) আবূ হুরায়রা (রাঃ) থেকে বর্ণনা করেন যে, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেনঃ আল্লাহ তাআলা 'ফেরেশতাদেরকে' বলেছেনঃ আমার বান্দা কোন পাপ কর্মের কথা ভাবলেই তা লিখবে না, বরং সে যদি তা কার্যে পরিণত করে তবে একটি পাপ লিখবে। আর যদি সে কোন নেক কাজের নিয়ত করে কিন্তু তা সে কার্যে পরিণত না করে, তাহলেও এর জন্য প্রতিদানে তার জন্য একটি সাওয়াব লিখবে আর তা সম্পাদন করলে লিখবে দশটি সাওয়াব! (সহীহ মুসলিম, হাদিস নম্বরঃ ২৩৪)

আরেক হাদিসে এসেছেঃ সাঈদ ইবনু মানসূর, কুতাইবাহ ইবনু সাঈদ ও মুহাম্মাদ ইবনু উবায়দ আল গুবারী (রহঃ) আবূ হুরায়রা (রাঃ) বর্ণনা করেন যে, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেনঃ কথা বা কাজে পরিণত না করা পর্যন্ত আল্লাহ তাআলা আমার উম্মতের জন্য তাদের মনে কল্পনাগুলোকে মাফ করে দিয়েছেন। (সহীহ মুসলিম, হাদিস নম্বরঃ ২৩০)

জনাব! এগুলি হলো শয়তানের কুমন্ত্রনা। এতে ইমানের ক্ষতি হবে না যদি না বাস্তবে পরিনত করেন।
সাবির ইসলাম অত্যন্ত ধর্মীয় জ্ঞান পিপাসু এক জ্ঞানান্বেষী। জ্ঞান অন্বেষণ চেতনায় জাগ্রতময়। আপন জ্ঞানকে আরো সমুন্নত করার ইচ্ছা নিয়েই তথ্য প্রযুক্তির জগতে যুক্ত হয়েছেন নিজে জানতে এবং অন্যকে জানাতে। লক্ষ কোটি মানুষের নীরব আলাপনের তীর্থ ক্ষেত্রে যুক্ত আছেন একজন সমন্বয়ক হিসেবে।
0 টি পছন্দ
করেছেন (1,086 পয়েন্ট)
সম্পাদিত করেছেন

খারাপ চিন্তা আসলে ইমানের ক্ষতি হবার আসংক্ষা আছে। খারাপ চিন্তা আসার বেশ কিছু কারণ আছে তা হলো নেতিবাচক মনভাবাপন্ন লোকদের সাথে চলাফেরা ফেরা,আল্লাহ যে বিষয়ে চিন্তা করতে নিষেধ করেছেনা তা নিটা সীমালঙ্গন  করা।

ইমান দুর্বল হলেই অনিচ্ছাকৃত এমন কুচিন্তা আসতে পারে। তাই আল্লাহর কাছে তওবা করেন। আর বাজে লোকদের সাথে বাজে পই পড়া থেকে নিজেকে দূরে রাখেন আশা করি এমন সমস্যা আর হবে না।

করেছেন (58 পয়েন্ট)
ভাই আপনার কথাটা যুক্তিতে দেখান সইতান প্রতিনিয়ত মানুষ এর মনে কুমন্তনা দিচ্ছে এটা হলো ওসওসা সইতান থেকে আসা এটা ইমান এর লক্ষণ কারন আল্লাহ রাব্বুল আলামিন বলেছেন সেই পজন্ত ইমান চলে যাবে না যেই পজন্ত এই ওসওসা অনুযায়ী চলে আশা করি আপনি বুঝতে পেরেছেন আসসালামুআলাইকুম।          
করেছেন (10,632 পয়েন্ট)
@সরকার! হাদিসটি বুঝিয়ে দিবেন। আবূ হুরাইরাহ (রাঃ) হতে বর্ণিত। তিনি বলেন, নাবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর কিছু সাহাবা তার সামনে এসে বললেন, আমাদের অন্তরে এমন কিছু খটকার সৃষ্টি হয় যা আমাদের কেউ মুখে উচ্চারণ করতেও মারাত্মক মনে করে। রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেন, সত্যই তোমাদের তা হয়? তারা জবাব দিলেন, জী, হ্যাঁ। রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেনঃ এটিই স্পষ্ট ঈমান।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

3 টি উত্তর
14 ফেব্রুয়ারি 2016 "হাদিস" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন মোঃ ইমামুল ইসলাম (49 পয়েন্ট)

358,498 টি প্রশ্ন

453,494 টি উত্তর

142,025 টি মন্তব্য

189,859 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...