বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
47 জন দেখেছেন
"সিয়াম" বিভাগে করেছেন (24 পয়েন্ট)
কেঊ যদি রোজা রাখা অবস্থায় একটা মেয়ের সাথে বন্ধু হিসাবে কথা বলে ,কোন খারাপ কথা না।কিন্তু কথা বলার পর যদি বীর্যরস বের হয়।তাহলে রোজা কী নষ্ট হবে?
আর এমন সমস্যা হলে কি কথা বলা ঠিক?ইসলামের আলোকে সমাধান চাই

2 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (3,198 পয়েন্ট)
কোন যুবতীর সাথে কোন যুবকের নিষ্কাম বন্ধুত্ব অসম্ভব। পরন্ত সেই বন্ধুত্বের জোরে দেখা সাক্ষাৎ ও অবাধ মেলামেশা করা বা কথাবার্তা বলা  নিঃসন্দেহে হারাম। তেমনি কোন যুবতীকে ‘বোন’ বানিয়েও অনুরূপ দেখা সাক্ষাৎ ও অবাধ মেলামেশা করা বা কথাবার্তা বলা বৈধ নয়। কারণ ‘বোন’ বলতে বলতেই বান আসে। ‘বোন’ বলতে বলতেই মনের বন তুফান তোলে। বরং কারো সাথে ‘মা’ পাতিয়েও অনুরূপ দেখা সাক্ষাৎ ও অবাধ মেলামেশা ইত্যাদি বৈধ নয়। যেহেতু কাউকে ‘বউ’ বললেই যেমন সে নিজের ‘বউ’ হয়ে যায় না। তেমনি কাউকে ‘মা’ বা ‘বোন’ বললেই নিজের মাহরাম হয়ে যায় না; যতক্ষণ না তাদের সাথে রক্ত, দুগ্ধ বা বৈবাহিক সম্পর্ক কায়েম হয়েছে।

আপনার যে অবস্থা সৃষ্টি হয়েছিল তাতে রোজা নষ্ট হয়ে গিয়েছে তাই উক্ত রোজার কাজা আদায় করতে হবে।
0 টি পছন্দ
করেছেন (3,789 পয়েন্ট)
বীর্যরস দ্বারা যদি বীর্য উদ্দেশ্য হয় তাহলে রোযা ভেঙ্গে যাবে। আর যদি বীর্যরস দ্বারা পিচ্ছিল পানি উদ্দেশ্য হয় (যা মনে মনে কুচিন্তা করার কারণে বের হয়) তাহলে রোযা ভাঙবে না।

এমন সমস্যা হোক বা না হোক কোন গায়রে মাহরাম মেয়ের সাথে কথা বলা বা দেখা করার বৈধতা ইসলাম দেয়নি। অতএব এ ধরনের কবীরা গুনাহ থেকে আমাদের বেঁচে থাকা অবশ্য কর্তব্য।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

2 টি উত্তর
05 জুন 2018 "যৌন" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Md Sujan Hossain (24 পয়েন্ট)
3 টি উত্তর
07 এপ্রিল "ইসলাম" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Md Masud Rana. (2,762 পয়েন্ট)

323,046 টি প্রশ্ন

413,608 টি উত্তর

128,165 টি মন্তব্য

177,911 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...