বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
276 জন দেখেছেন
"ইসলাম" বিভাগে করেছেন (202 পয়েন্ট)
মৃত ব্যক্তির আত্মার শান্তির জন্য কালিমা খতম বা কোরআন খতম করা যাবে কি?

4 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (762 পয়েন্ট)
হ্যা।এটা জায়েজ আছে।বর্তমান হক্কানে ঊলামায়ে ক্বেরাম দ্বারা এটা স্বীকৃত। ঈছালে ছাওয়াব হিসেবে কুরআন ও কালিমা খতম করে তার সাওয়াব মৃত ব্যাক্তির নামে বকশে দিতে পারেন।
0 টি পছন্দ
করেছেন (4,853 পয়েন্ট)
আপন কেউ মৃত্যুবরণ করলে কুরআন পাঠ থেকে শুরু করে যে কোনো ধরনের ইবাদত করে তাদেরকে উপকৃত করা যায়। কিন্তু সমাজে সোয়া লাখী কলেমার খতম নামে যে খতমের প্রচলন রয়েছে এবং এর মাহাত্ম্য ও উপকারিতা সম্বন্ধে যা কিছু বলা হয়ে থাকে এর কোনো ভিত্তি ইসলামী শরীয়াতে নেই। সংখ্যা নির্ধারণ না করে এবং নির্দিষ্ট উপকারিতার প্রতি বিশ্বাস না করে কেউ যদি বেশি বেশি কালেমা পাঠ করে তাহলে তাতে আশা করা যায় মৃত ব্যক্তি উপকৃত হবেন এবং সেটা বৈধও হবে।
0 টি পছন্দ
করেছেন (7,391 পয়েন্ট)

যে ব্যাক্তি তার পিতা-মাতা উভয়ের কবর প্রত্যেক জুম’আর দিবসে যিয়ারত করবে। অতঃপর তাদের উভয়ের নিকট অথবা পিতার কবরের নিকট সূরা ইয়াসিন পাঠ করবে, প্রত্যেক আয়াত অথবা অক্ষরের সংখ্যার বিনিময়ে তাকে ক্ষমা করে দেয়া হবে।


মাকিল ইবনু ইয়াসার (রাঃ) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেনঃ তোমরা তোমাদের মৃতদের কাছে সূরা ইয়াসিন পড়ো। সুনানে ইবনে মাজাহ, হাদিস নম্বরঃ ১৪৪৮


হাদিসের মানঃ যঈফ হলেও আপনজনের মৃতদের কাছে সূরা ইয়াসিন বা তাদের আত্মার শান্তির জন্য কোরআন খতম করা যাবে। 


তবে কালিমা সোয়া লাখ বার পড়া এরকম রেওয়াজ থাকলেও কোরআন হাদিসে এর কোন রেফারেন্স পাওয়া যায়না।


0 টি পছন্দ
করেছেন (280 পয়েন্ট)
অবশ্যই জায়েজ হবে। কেননা উক্ত কাজ ইছালে সাওয়াবের মধ্যে পড়ে। তাই মৃত ব্যক্তির পক্ষে যে কোন নেকির কাজ করলে সেটা ইছালে সাওয়াব হিসেবে বিবেচিত হবে। যেমন: কোরআন তিলাওয়াত, যিকির, মেজবান করে গরীব মিসকিনদের খাওয়ানো, ইত্যাদি সমস্ত কাজ জায়েজ।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

2 টি উত্তর

306,558 টি প্রশ্ন

395,405 টি উত্তর

120,668 টি মন্তব্য

169,851 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...