বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
612 জন দেখেছেন
"ইসলাম" বিভাগে করেছেন (14 পয়েন্ট)
করেছেন (51 পয়েন্ট)

না পারবে না।তবে ওই স্ত্রী যদি অন্য কাউকে বিবাহ করে এবং ওই স্বামি যদি মারা যায় বা তালাক দেয় তাহলে সে পুনরায় বিবাহ করতে পারবে।

1 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (5,486 পয়েন্ট)
নির্বাচিত করেছেন
 
সর্বোত্তম উত্তর

এক বা দুই তালাক দিলে নিয়ম অনুয়ায়ী ফিরিয়ে নেওয়া যাবে ।কিন্তু তিন তালাক দিলে ফিরিয়ে নেওয়া যায়না। কিন্তু অন্যখানে বিয়ে হওয়ার পর ঐ স্বামী তালাক দিলে বা মারা গেলে তখন বিবাহ করা যাবে ।

ﻓَﺈِﻥ ﻃَﻠَّﻘَﻬَﺎ ﻓَﻠَﺎ ﺗَﺤِﻞُّ ﻟَﻪُ ﻣِﻦ ﺑَﻌْﺪُ ﺣَﺘَّﻰٰ ﺗَﻨﻜِﺢَ ﺯَﻭْﺟًﺎ ﻏَﻴْﺮَﻩُ ۗ ﻓَﺈِﻥ ﻃَﻠَّﻘَﻬَﺎ

ﻓَﻠَﺎ ﺟُﻨَﺎﺡَ ﻋَﻠَﻴْﻬِﻤَﺎ ﺃَﻥ ﻳَﺘَﺮَﺍﺟَﻌَﺎ ﺇِﻥ ﻇَﻨَّﺎ ﺃَﻥ ﻳُﻘِﻴﻤَﺎ ﺣُﺪُﻭﺩَ ﺍﻟﻠَّﻪِ ۗ ﻭَﺗِﻠْﻚَ

ﺣُﺪُﻭﺩُ ﺍﻟﻠَّﻪِ ﻳُﺒَﻴِّﻨُﻬَﺎ ﻟِﻘَﻮْﻡٍ ﻳَﻌْﻠَﻤُﻮﻥَ ‏[ ٢ : ٢٣٠ ]

তারপর যদি সে স্ত্রীকে (তৃতীয়বার) তালাক

দেয়া হয়, তবে সে স্ত্রী যে পর্যন্ত তাকে ছাড়া

অপর কোন স্বামীর সাথে বিয়ে করে না

নেবে,তার জন্য হালাল নয়। অতঃপর যদি দ্বিতীয়

স্বামী তালাক দিয়ে দেয়,তাহলে তাদের

উভয়ের জন্যই পরস্পরকে পুনরায় বিয়ে করাতে

কোন পাপ নেই। যদি আল্লাহর হুকুম বজায়

রাখার ইচ্ছা থাকে। আর এই হলো আল্লাহ কর্তৃক

নির্ধারিত সীমা;যারা উপলব্ধি করে তাদের

জন্য এসব বর্ণনা করা হয়। [সূরা বাকারা-২৩০]

ﻭﻗﺎﻝ ﺍﻟﻠﻴﺚ ﻋﻦ ﻧﺎﻓﻊ ﻛﺎﻥ ﺍﺑﻦ ﻋﻤﺮ ﺇﺫﺍ ﺳﺌﻞ ﻋﻤﻦ ﻃﻠﻖ ﺛﻼﺛﺎ ﻗﺎﻝ ﻟﻮ

ﻃﻠﻘﺖ ﻣﺮﺓ ﺃﻭ ﻣﺮﺗﻴﻦ ﻓﺄﻥ ﺍﻟﻨﺒﻲ ﺻﻠﻰ ﺍﻟﻠﻪ ﻋﻠﻴﻪ ﻭ ﺳﻠﻢ ﺃﻣﺮﻧﻲ ﺑﻬﺬﺍ

ﻓﺈﻥ ﻃﻠﻘﺘﻬﺎ ﺛﻼﺛﺎ ﺣﺮﻣﺖ ﺣﺘﻰ ﺗﻨﻜﺢ ﺯﻭﺟﺎ ﻏﻴﺮﻙ

হযরত নাফে রহ. বলেন,যখন হযরত ইবনে উমর রাঃ

এর কাছে ‘এক সাথে তিন তালাক দিলে তিন

তালাক পতিত হওয়া না হওয়া’ (রুজু‘করা যাবে

কিনা) বিষয়ে জিজ্ঞাসা করা হলো,তখন তিনি

বলেন-“যদি তুমি এক বা দুই তালাক দিয়ে থাকো

তাহলে ‘রুজু’ [তথা স্ত্রীকে বিবাহ করা ছাড়াই

ফিরিয়ে আনা] করতে পার। কারণ,রাসুলুল্লাহ

সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আমাকে

এরকম অবস্থায় ‘রুজু’ করার আদেশ দিয়েছিলেন।

যদি তিন তালাক দিয়ে দাও তাহলে স্ত্রী

হারাম হয়ে যাবে, সে তোমাকে ছাড়া অন্য

স্বামী গ্রহণ করা পর্যন্ত। {সহীহ বুখারী-২/৭৯২,

২/৮০৩}

ﻋﻦ ﻣﺠﺎﻫﺪ ﻗﺎﻝ ﻛﻨﺖ ﻋﻨﺪ ﺍﺑﻦ ﻋﺒﺎﺱ ﻓﺠﺎﺀ ﺭﺟﻞ ﻓﻘﺎﻝ ﺇﻧﻪ ﻃﻠﻖ

ﺍﻣﺮﺃﺗﻪ ﺛﻼﺛﺎ. ﻗﺎﻝ ﻓﺴﻜﺖ ﺣﺘﻰ ﻇﻨﻨﺖ ﺃﻧﻪ ﺭﺍﺩﻫﺎ ﺇﻟﻴﻪ ﺛﻢ ﻗﺎﻝ ﻳﻨﻄﻠﻖ

ﺃﺣﺪﻛﻢ ﻓﻴﺮﻛﺐ ﺍﻟﺤﻤﻮﻗﺔ ﺛﻢ ﻳﻘﻮﻝ ﻳﺎ ﺍﺑﻦ ﻋﺒﺎﺱ ﻳﺎ ﺍﺑﻦ ﻋﺒﺎﺱ ﻭﺇﻥ

ﺍﻟﻠﻪ ﻗﺎﻝ ‏( ﻭَﻣَﻦْ ﻳَﺘَّﻖِ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻳَﺠْﻌَﻞْ ﻟَﻪُ ﻣَﺨْﺮَﺟًﺎ ‏) ﻭﺇﻧﻚ ﻟﻢ ﺗﺘﻖ ﺍﻟﻠﻪ ﻓﻠﻢ

ﺃﺟﺪ ﻟﻚ ﻣﺨﺮﺟﺎ ﻋﺼﻴﺖ ﺭﺑﻚ ﻭﺑﺎﻧﺖ ﻣﻨﻚ ﺍﻣﺮﺃﺗﻚ

অর্থ: হযরত মুজাহিদ রহঃ. বলেন,আমি ইবনে

আব্বাস রাঃ-এর পাশে ছিলাম। সে সময় এক

ব্যক্তি এসে বলেন-‘সে তার স্ত্রীকে তিন

তালাক দিয়েছে। হযরত ইবনে আব্বাস রাঃ চুপ

করে রইলেন। আমি মনে মনে ভাবছিলাম-হয়ত

তিনি তার স্ত্রীকে ফিরিয়ে আনার কথা বলবেন

(রুজু করার হুকুম দিবেন)। কিছুক্ষণ পর ইবনে

আব্বাস রা. বলেন,তোমাদের অনেকে

নির্বোধের মত কাজ কর;[তিন তালাক দিয়ে

দাও!] তারপর ‘ইবনে আব্বাস! ইবনে আব্বাস! বলে

চিৎকার করতে থাক। শুনে রাখ আল্লাহ তা‘য়ালা

বাণী-“যে ব্যক্তি আল্লাহ তা‘য়ালাকে ভয় করে

আল্লাহ তা‘য়ালা তার জন্য পথকে খুলে দেন।

তুমিতো স্বীয় রবের নাফরমানী করেছো [তিন

তালাক দিয়ে]। এ কারণে তোমার স্ত্রী তোমার

থেকে পৃথক হয়ে গেছে। {সুনানে আবু

দাউদ-১/২৯৯, হাদীস নং-২১৯৯, সুনানে বায়হাকী

কুবরা, হাদীস নং-১৪৭২০, সুনানে দারা কুতনী,

হাদীস নং-১৪৩}

আরও বিস্তারিত দেখুন এখানে

রেজাউল কারীম প্রচন্ড জ্ঞানপিপাসু এবং আত্মবিশ্বাসী। বিস্ময়কে বেছে নিয়েছেন জ্ঞান অর্জন ও জ্ঞান বিতরণের মাধ্যম হিসেবে। স্বপ্ন দেখেন একজন আদর্শবান শিক্ষক হওয়ার। বিস্ময় ডট কমের সাথে আছেন সমন্বয়ক হিসেবে।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর

343,731 টি প্রশ্ন

436,819 টি উত্তর

136,772 টি মন্তব্য

185,100 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...