বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
286 জন দেখেছেন
"ফাতাওয়া-আরকানুল-ইসলাম" বিভাগে করেছেন (11 পয়েন্ট)
করেছেন (6,125 পয়েন্ট)
আপনার প্রশ্ন স্পষ্ট নয়। মৃত সন্তান কীভাবে সম্পদ পাবে? সে তো মারাই গেছে! বিষয় খোলাসা করুন। তাহলে উত্তর দেওয়া সহজ হবে।
করেছেন (6,125 পয়েন্ট)
আপনি প্রশ্নটা স্পষ্ট করেননি। তবে আমি যতটুকু বুঝেছি- আপনি দাদার সম্পত্তিতে নাতি কেন ওয়ারিশ হয় না, এই বিষয়টাই জানতে চেয়েছেন। আর আমি সে অনুযায়ী উত্তর দিচ্ছি। যদি অন্য কোনো বিষয় থাকে, তাহলে কমেন্টে বলবেন।

1 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (6,125 পয়েন্ট)
প্রথমত কেউ তার পূর্বপুরুষের আগে মারা গেলে, সে আর মিরাস পায় না। এটাই নিয়ম- সর্বক্ষেত্রে। আর এখানেও ছেলে মারা যাওয়ার কারণে সে মিরাস পাবে না। আর ছেলে না পেলে তার বংশধর হয়ে নাতি সেই মিরাস পাওয়ার প্রশ্নই ওঠে না। দ্বিতীয়ত ছেলে ওয়ারিশ হয় 'আসাবা' হিসেবে। আর আসাবা হল- ফারায়েজের অধিকার প্রত্যেকের অংশ অনুযায়ী দেওয়ার পর যা থাকে, তা যারা নিয়ে নেয়- তারাই আসাবা। সে হিসেবে ছেলের মতো নাতিকেও যদি আসাবা ধরা হয়, তবু সে সর্বোচ্চ এক চতুর্থাংশ বা এধরনের অংশ পাবে। খুব বেশি পাবে না। অপরদিকে ওয়ারিশদের জন্য অসিয়ত বা উইল করার সিস্টেম নেই। কিন্তু ওয়ারিশ ছাড়া যে কারো জন্য উইল করা যায়। এমতাবস্থায় নাতি যদি ওয়ারিশ হয়, তাহলে পাবে এক চতুর্থাংশ। কিন্তু ওয়ারিশ না হলে দাদা তাকে উইল করে এক তৃতীয়াংশ দিয়ে দিতে পারে। মোটকথা, নাতি ওয়ারিশ না হয়েও বিপুল সম্পত্তি পাওয়ার সুযোগ করে দিয়েছে ইসলাম। যা সে ওয়ারিশ হলে পেত না। তাই এই আইন সম্পূর্ণ যৌক্তিক এবং ভারসাম্যপুর্ণ।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

2 টি উত্তর
19 সেপ্টেম্বর 2016 "ধর্ম ও আধ্যাত্মিক বিশ্বাস" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Probasi (12 পয়েন্ট)

311,651 টি প্রশ্ন

401,264 টি উত্তর

123,179 টি মন্তব্য

172,757 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...