বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
73 জন দেখেছেন
"ইবাদত" বিভাগে করেছেন (20 পয়েন্ট)
আমি একজন আলেমকে জিজ্ঞাসা করেছিলাম বাংলা অনুবাদ করা কোরআন ( কোনো আরবি নেই) ওজু ছাড়া পড়া যাবে কিনা। কিন্তু তিনি উত্তর দেন এটা পড়া জায়েজ নেই!!! তাহলে কি কোরআন বুঝবো কিভাবে??? 

3 উত্তর

+1 টি পছন্দ
করেছেন (10,370 পয়েন্ট)
নির্বাচিত করেছেন
 
সর্বোত্তম উত্তর
বাংলায় কোরআন পড়া জায়েয নেই। কেননা, যে আরবী উচ্চারণে যে অর্থ প্রকাশ পাবার কথা, সেটা বাংলায় উচ্চারণ করলে অর্থ পরিবর্তন হয়ে যায়। আরবীর উচ্চারণও সঠিক হওয়া জরুরী। যা বাংলায় কোন ক্রমেই সঠিক হবে না।

আপনি যে আলেমকে জিজ্ঞাসা করেছিলেন তিনি এটাই বলছেন বাংলা অনুবাদ করা কোরআন পড়া জায়েজ নেই!!!

উদাহরণ একঃ ক্বুল হুয়াল্লাহু আহাদ। আল্লাহুস সামাদ। লাম ইয়ালিদ, ওয়ালাম ইউলাদ। ওয়ালাম ইয়াকুল্লাহু কুফুয়ান আহাদ। এভাবে বাংলায় লিখে পড়া জায়েয নেই।

উদাহরণ দুইঃ বলুন, তিনি আল্লাহ, এক, আল্লাহ অমুখাপেক্ষী, তিনি কাউকে জন্ম দেননি এবং কেউ তাকে জন্ম দেয়নি এবং তার সমতুল্য কেউ নেই। এভাবে বাংলায় অর্থ পড়া জায়েয। এই বাংলা অনুবাদ করা কোরআন যাতে কোনো আরবি নেই বা কোরআনে স্পর্শ করে পড়া নয় এক্ষেত্রে অজু ছাড়া পড়া যাবে।

উদাহরণ তিনঃ

ﻗُﻞْ ﻫُﻮَ ﺍﻟﻠَّﻪُ ﺃَﺣَﺪٌ ﺍﻟﻠَّﻪُ ﺍﻟﺼَّﻤَﺪ ﻟَﻢْ ﻳَﻠِﺪْ ﻭَﻟَﻢْ ﻳُﻮﻟَﺪْ ﻭَﻟَﻢْ ﻳَﻜُﻦ ﻟَّﻪُ ﻛُﻔُﻮًﺍ ﺃَﺣَﺪ

এভাবে কোরআন পড়তে হলে অজু করতে হবে। কুরআন স্পর্শ করা ও পড়ার জন্য কিছু বিশেষ আদবের প্রয়োজন আছে। সাধারনভাবে আমরা জানি যে অজু ছাড়া কুরআন শরিফ স্পর্শ করা যায় না।
সাবির ইসলাম অত্যন্ত ধর্মীয় জ্ঞান পিপাসু এক জ্ঞানান্বেষী। জ্ঞান অন্বেষণ চেতনায় জাগ্রতময়। আপন জ্ঞানকে আরো সমুন্নত করার ইচ্ছা নিয়েই তথ্য প্রযুক্তির জগতে যুক্ত হয়েছেন নিজে জানতে এবং অন্যকে জানাতে। লক্ষ কোটি মানুষের নীরব আলাপনের তীর্থ ক্ষেত্রে যুক্ত আছেন একজন সমন্বয়ক হিসেবে।
+1 টি পছন্দ
করেছেন (557 পয়েন্ট)
আমি যতদূর জানি, পড়া যাবে। তবে আরবী নাই বলে ওযু ছাড়া পড়বেন, এটি যায়েজ নাই। আরবীর জন্য ওযু করতে হবে এটি মোটেও ঠিক নয়। আরবী একটি ভাষা মাত্র। সৌদি আরব সহ মধ্য প্রাচ্যের অনেক দেশের মাতৃভাষা আরবী। তার মানে এইনা যে তাহারা সর্বদাই ওযু থাকে। তাদের বই পত্র, ছেড়া কাগজ আরবী হলেও ড্রেনে ফেলে দেয় কিন্তু। ভাষার জন্য ওযু নয়। ওযু হচ্ছে পবিত্র কালাম বা বানীর জন্য। আর কোরআন পবিত্র বলে তা ওযু ছাড়া পড়া নিষেধ। এছাড়া আরবীকে বাংলায় লিখে তা পড়াও ঠিক না। কিন্তু অনুবাদ পড়া যাবে।
0 টি পছন্দ
করেছেন (1,115 পয়েন্ট)
সম্পাদিত করেছেন
আল কুরআন বাংলা ভাষায় পড়া যায়েজ না।কারন কুরআন মাজিদ খেলা আরবি ভাষায় আর বাংলা ভাষায় পড়লে অনেক আরবি বর্নের উচ্চারন সঠিক হয় না।যার ফলে কুরআনের সঠিক অর্থের বৃকিতি হতে পারে।এজন্য কষ্ট হলেও কুরআন আরবি ভাষায় পড়া উচিত।অনুবাদ করা কুরআন পড়তে পারেন।আর আল কুরআন পড়লে গেলে ওযু করতেই হবে।
করেছেন (106 পয়েন্ট)
প্রশ্ন হলো অনুবাদ করা কুরআন।
করেছেন (173 পয়েন্ট)
আপনার উত্তর ত প্রথম জনই দিয়ে দিছে। 

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর
14 ফেব্রুয়ারি "ফাতাওয়া-আরকানুল-ইসলাম" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Saif bin omar rafi (23 পয়েন্ট)

350,199 টি প্রশ্ন

444,223 টি উত্তর

139,221 টি মন্তব্য

187,265 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...