বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
15 জন দেখেছেন
"স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা" বিভাগে করেছেন (12 পয়েন্ট)

1 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (3,097 পয়েন্ট)

পবিত্র কোরআন শরীফের ৯৫ নম্বর সূরার নাম “আত্ তীন”। তীন আরবি শব্দ, যার অর্থ আঞ্জির বা ডুমুর। এ সূরায় মহান আল্লাহ এরশাদ করেছেন “ওয়াততীন ওয়াঝঝাইতূন। ওয়া তূরি ছীনীন। ওয়া হা-যাল বালাদিল আমীন। ” অর্থ : শপথ তীন ও যাইতূন এর। শপথ সীনাই পর্বতের এবং শপথ এই নিরাপদ ও শান্তিময় নগরীর। (আয়াত :১-৩)। পবিত্র ধর্মগ্রন্থ আল কুরআনে ‘ত্বীন’ বা আঞ্জির ফলকে আল্লাহর বিশেষ নিয়ামত বা অনুগ্রহরূপে ব্যক্ত করা হয়েছে।

ডুমুর নরম ও মিষ্টিজাতীয় ফল। ফলের আবরণ ভাগ খুবই পাতলা এবং এর অভ্যন্তরে অনেক ছোট ছোট বীজ রয়েছে। এর ফল শুকনো ও পাকা অবস্থায় ভক্ষণ করা যায়। উষ্ণ জলবায়ু অঞ্চলে এ প্রজাতির গাছ জন্মে। কখনো কখনো জ্যাম হিসেবে এর ব্যবহার হয়ে থাকে। এছাড়াও, স্ন্যাকস জাতীয় খাবারেও ডুমুরের প্রয়োগ হয়ে থাকে।

ডুমুর খুবই উপকারী। এবার দেখে নেই ডুমুরের অবিশ্বাস্য গুণ সম্পর্কে!

১. ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য ডুমুরের রস খুবই উপকারী।

২. প্রতিদিন ৩-৫ টি ডুমুর খেলে যৌন শক্তি বৃদ্ধি পায়।

৩. মেয়েদের মাসিকের সময় বেশি রক্তস্রাব হলে কচি ডুমুরের রসের সঙ্গে সামান্য মধু মিশিয়ে খেলে উপকার হয় এবং রক্তপিত্ত সারে।

৪. ডুমুর পিত্ত ও আমাশয় রোগে উপকারী।

৫. এতে অধিক পরিমাণে লোহা আছে (অতিরিক্ত খেলে কোষ্ঠকাঠিন্য হতে পারে)।

৬. রক্তপিত্ত, রক্তপড়া এবং রক্তহীনতা রোগে উপকারী।

৭. জ্বরের পর ডুমুর রান্না করে খেলে এটি টনিকের কাজ করে।

৮. দুধ ও চিনির সঙ্গে ডুমুরের রস খেলেও অধিক ঋতুস্রাব বন্ধ হয়।

৯. আমাশয় হলে ৩ দিন কচি ডুমুরের পাতা আতপ চালের সাথে চিবিয়ে খেলে ভালো হয়।

১০. সাদা ও রক্ত আমাশয় হলে ডুমুর গাছের ছালের ২ চামচ রস এবং মধু মিশিয়ে দুই বেলা খেলে উপকার হয়।

১১. মাথা ঘোরা রোগে ডুমুর ভাজি করে খেলে উপকার পাওয়া যায়।

১২. অতিরিক্ত হেঁচকি উঠলে ডুমুরের বাইরের অংশ কেটে পানিতে এক ঘণ্টা ভিজিয়ে রাখতে হবে। তারপর ঐ পানি ছেঁকে এক চা চামচ করে খেলে হেঁচকি ওঠা বন্ধ হয়।

১৩. ডুমুর গাছের ছাল পানিসহ সিদ্ধ করে সেই পানি দ্বারা ত্বক ধৌত করলে চর্মের বিবর্ণতা এবং ক্ষত রোগে উপকার হয়।

১৪. দুধের সাথে সিদ্ধ করে প্রলেপ দিলে ফোঁড়া পাকে।

১৫. ক্ষুধামন্দা রোগে ১ চা চামচ কাঁচা ডুমুরের রস খাওয়ার পর সেবন করলে ভাল ফল পাওয়া যায়।

সতর্কতা : অতিরিক্ত ডুমুর খেলে কোষ্ঠকাঠিন্য হতে পারে এবং যকৃৎ, পাকস্থলী ও দাঁতের জন্য ক্ষতিকর।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

2 টি উত্তর
19 এপ্রিল "কৃষি" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Badshah Niazul (5,430 পয়েন্ট)
2 টি উত্তর
29 অগাস্ট 2016 "যৌন" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন আলুফা (17 পয়েন্ট)

332,639 টি প্রশ্ন

423,503 টি উত্তর

131,587 টি মন্তব্য

181,419 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...