বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
18 জন দেখেছেন
"ইসলাম" বিভাগে করেছেন অজ্ঞাতকুলশীল
আর মুসলিম হবো কিভাবে।

1 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (204 পয়েন্ট)
ইসলামে ধর্মান্তরিত হওয়ার জন্য প্রথমেই আপনাকে ইসলামী ভাবধারার দুটি মূলনীতিতে বিশ্বাস স্থাপন করতে হবে। ১-আল্লাহ এক এবং অদ্বিতীয় এবং আল্লাহ্ ব্যতীত আর কেউ ইবাদতের যোগ্য নয়। ২-আর, হযরত মুহাম্মাদ সা. আল্লাহ্র বান্দা ও রাসুল। উল্লিখিত মূলনীতি গুলো আপাতপক্ষে সাধারণ মনে হলেও, এ দুটি মূলনীতি নতুন বিশ্বাসীদের জীবনে অনেক গুরুত্বপূর্ণ পরিবর্তন যুক্ত করে। কিন্তু এরপর ও যদি আপনি মনে করেন যে,আপনি কুরআনে বর্ণিত আল্লাহ্র হুকুম , রাসুলের সুন্নাহ (রাসুলের ঐতিহ্য ও কাজের উদাহরণ) অনুযায়ী আপনার জীবন পরিচালনা করতে প্রস্তুত তাহলে আপনি ইসলামে ‘পরিবর্তিত’ হতে পারেন। যেহেতু আপনি ইসলাম ধর্মে ধর্মান্তরিত হওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন,অথবা বরঞ্চবলা যায়, ইসলামে প্রত্যাবর্তন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। সেহেতু বলা যায়, আপনি আপনার প্রকৃত সৃষ্টিকর্তার ইবাদাতের প্রাকৃতিক ধর্মেই ফিরে এসেছেন-আপনি আপনার জীবনকে আল্লাহ্র কাছে সমর্পণ করছেন আল্লাহ্র আনুগত্যে জীবন পরিচালনার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছেন। আপনার মুসলিম হওয়া মূলত আপনার এবং আল্লাহ্র মাঝে একটি বন্ধন। কিন্তু সামাজিক ও আনুষ্ঠানিকতার প্রয়োজনে আপনাকে প্রকাশ্যে এই পরিবর্তন স্বীকার করতে হবে। এটা অনেক কারনেই জরুরী যেমন- বৈশ্বিক মুসলিম সম্প্রদায়ের অন্তর্ভুক্ত হওয়ার জন্য এবং মুসলিম হিসেবে পরিচিতি লাভ করার জন্য। উদাহরণস্বরূপঃ যেমন বিয়ের জন্য বা হজ্জ (মক্কার পথে তীর্থযাত্রা) পালনের জন্য আপনাকে মুসলিম হিসেবে পরিচয় প্রদান করতে হবে। শাহাদাহ পাঠ করা যখনই আপনি ইসলামে পরিবর্তিত হওয়ার সিদ্ধান্ত নিবেন, কোন রকম দেরী ছাড়াই আপনাকে শাহাদাহ বা বিশ্বাসের সাক্ষ্য প্রদানকারী কালেমা উচ্চারণ করতে হবে। শাহাদাহ ( বিশ্বাস স্থাপনের সাক্ষ্য প্রদান স্বরূপ বিবরণ) হলোঃ “আশ-হাদু আল্লা ইলাহা ইল্লা-ল্লাহু,ওয়া আশ –হাদু আন্না মুহাম্মাদান আব্দুহু ওয়া রাসুলুহ।” অর্থাৎঃ “আমি সাক্ষ্য প্রদান করছি যে আল্লাহ্ ব্যতীত আর কোন মাবুদ (প্রভু বা ইবাদাতের যোগ্য)নাই, এবং আমি সাক্ষ্য দিচ্ছি যে, মুহাম্মাদ সা. আল্লাহ্র বান্দা ও রাসুল।” সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যে বিষয়টি মাথায় রাখতে হবে তা হলো আল্লাহ এক এবং একমাত্র প্রভু, একমাত্র তাঁরই ইবাদাত করা উচিত, যেহেতু তিনিই আমাদের সৃষ্টিকর্তা, পালনকর্তা এবং মানবজাতির আইন প্রণয়নকারী। পরবর্তী যে বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ তা হলো মুহাম্মাদ সা. সর্বশেষ নবী যাকে আল্লাহ্ পাঠিয়েছেন। প্রত্যেক বিশ্বাসীদের জন্য তিনি শ্রেষ্ঠত্বের উদাহরণ। একজন মুসলিমকে অবশ্যই রাসুল সা. কে একমাত্র আদর্শ হিসেবে গ্রহণ করতে হবে এবং তাঁর শিক্ষা অনুসরণ করতে হবে। গোসল করা এখন, আনুষ্ঠানিকভাবে শাহাদাহ পাঠের পূর্বে একটি পরিপূর্ণ গোসল করার প্রতি পরামর্শ করা হয়, পূর্বের ভ্রান্ত বিশ্বাস, প্রথা এবং কাজগুলো ত্যাগের নিদর্শন হিসেবে। এবং যখনই আপনি ইসলাম ধর্মে পরিবর্তিত হবেন, এর মানে আপনি“সবচেয়ে বিশ্বস্ত হাত ধরলেন” যেমনটি আল্লাহ্ কুরআনে বলেছেন, অর্থাৎঃ “......এবং যারা আল্লাহ্তে বিশ্বাস স্থাপন করবে, সে ধারণ করে নিয়েছে সুদৃঢ় হাতল যা ভাংবার নয়......” (কুরআন ২;২৫৬) ব্যবহারিক জীবনে ইসলামিক দৃষ্টিকোণ থেকে কোনকিছু শিখার প্রয়োজন হলে আপনাকে আপনার কাছের মসজিদ বা কোন ইসলামিক কেন্দ্রের সাথে যোগাযোগ করার জন্য বলছি।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর

351,761 টি প্রশ্ন

445,803 টি উত্তর

139,730 টি মন্তব্য

187,735 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...