বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
83 জন দেখেছেন
"ধর্ম ও আধ্যাত্মিক বিশ্বাস" বিভাগে করেছেন অজ্ঞাতকুলশীল
যেমন এখন অনলাইনে যে প্রতারণা হয় সেরকমভাবে কেও টাকাটা চুরি করলো এখন সে অনুতপ্ত হলো,তবে সে টাকাটা ফেরত দিতে চাইলেও পারবেনা কারণ সে আমাকে চিনে না,আবার কারো এক টাকা রেখে জান্নাতে যাওয়া যাবে না।এমতাবস্থায় সেই চোরটি যে অনুতপ্ত আমিও জানি না জানলেও হয়তো ক্ষমা করব না তাহলে তার এ গুনাহ আল্লাহ ক্ষমা করতে পারবেন?

2 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (3,722 পয়েন্ট)
নির্বাচিত করেছেন
 
সর্বোত্তম উত্তর

না। আল্লাহ তায়ালা এই গুনাহ ততক্ষণ পর্যন্ত মাফ করবেন না, যতক্ষণ না ভুক্তভোগী বান্দা মাফ করে। 

হক দুই প্রকারঃ-

  • হাক্কুল্লাহ
  • হাক্কুল ইবাদ।
আল্লাহর হক নষ্ট করলে আল্লাহ মাফ করতে পারেন কিন্তু বান্দার হক মাফের অধিকার আল্লাহ বান্দাকেই দিয়ে দিয়েছেন। আপনি যদি তাকে মাফ না করেন, তবে হাশরের মাঠে তাঁর নেক আমল আপনার কাছে আসবে আর তাঁর নিকট আপনার বদ আমল চলে যাবে। ফলে সে আপনার ও তাঁর গুনাহ নিয়ে জাহান্নামে যাবে।তবে ক্ষমা করে দেওয়াই আপনার জন্য উত্তম। কারণ "নিশ্চয়ই আল্লাহ ক্ষমাশীলদের ভালোবাসেন।"


عن جابر عن النبي صلى الله عليه و سلم قال : إياكم والظلم فإن الظلم ظلمات يوم القيامة 


হযরত জাবের বিন আব্দুল্লাহ রাঃ থেকে বর্ণিত। রাসূল সাঃ ইরশাদ করেছেনঃ তোমরা জুলম থেকে বেঁচে থাক। কেননা, জুলুম কিয়ামতের দিন ভীষন অন্ধকার হয়ে দেখা দিবে। {আলআদাবুল মুফরাদ, হাদীস নং-৪৮৮, সুনানে তিরমিজী, হাদীস নং-২০৯৯, সুনানে দারেমী, হাদীস নং-২৫১৬, সহীহ বুখারী, হাদীস নং-২৩১৫, সহীহ মুসলিম, হাদীস নং-২৫৭৮}

করেছেন (204 পয়েন্ট)
মানে একজন মানুষ আমার ১০০৳ নিলো সে পরবর্তীতে যত বড় মুমিনই হয়ে যাক না কেনো  সে মাত্র ১০০৳ এর জন্য জাহান্নামে যাবে?আর হাশরের মাঠে মাফ করা যায়?মানে আমি যদি দুনিয়াতে মাফ না করতে পারি কি তখন হাশরের মাঠে মাফ করতে পারব?
করেছেন (3,722 পয়েন্ট)
এমতাবস্থায় সে ১০০ টা.... কা মসজিদে আপনার নামে দান করে দিবেন। তাহলে দানের সাওয়াব আপনার কাছে চলে যাবে আর সেও ক্ষমা পাবেন। তবে আপনি তার কাছে পরে টা.... কা দাবি করলে সে  টা... কা দিতে বাধ্য। তখন দানের সাওয়াব তার কাছে চলে আসবে।
করেছেন (204 পয়েন্ট)
আপনাকে আমি একটা মেসেজ দিচ্ছি একটু উত্তর দিন
0 টি পছন্দ
করেছেন (8,274 পয়েন্ট)
কেউ বান্দার হক নষ্ট করলে তাহলে তার কাছ থেকে অবশ্যই মাফ চেয়ে নিতে হবে কেননা ঐ ব্যক্তি যদি আপনাকে মাফ না করে তাহলে আল্লাহ ও আপনাকে মাফ করবেন না।

বান্দার হক নষ্ট করার গুনাহ ক্ষমা করার এখতিয়ার আল্লাহ নিজ হাতে রাখেননি। যেমন, আমি যদি একজনকে ধোঁকা দিয়ে ১টি টাকাও নিয়ে নিই, একমাত্র সেই লোক (যার হক নষ্ট করলাম) সে বাদে আর কেউ ক্ষমা করতে পারবে না। কারো হক নষ্ট করে থাকলে যে ভাবেই হোক তাকে তার পাওনা ফিরিয়ে দিতে হবে, সামর্থ্য না থাকলে অনুরোধ করে, ক্ষমা চেয়ে তার কাছ থেকে মাফ করিয়ে নিতে হবে। উল্লেখ্য, তওবা করলে আল্লাহ সমস্ত গুনাহ মাফ করে দেন, এমনকি কারো পাপ জমীন থেকে আকাশ পর্যন্ত পৌঁছে গেলেও আল্লাহ তাকে মাফ করে দেবেন ইনশা- আল্লাহ।

কিন্তু বান্দার কোনো হক নষ্ট করে থাকলে সেটা বান্দা মাফ না করলে আল্লাহও ক্ষমা করবেন না।

এখন অনলাইনে যে প্রতারণা হয় সেরকম ভাবে কেও টাকাটা চুরি করলো এখন সে অনুতপ্ত হলো, তবে সে টাকাটা ফেরত দিতে চাইলেও পারবেনা কারণ সে আমাকে চিনে না। তাই করনীয় হচ্ছেঃ

তাকে যেহেতু পাওয়া যাচ্ছে না এবং তার উপযুক্ত কোন উত্তরাধিকার কেও পাওয়া যাচ্ছে না; তখন দেখতে হবে, অপরাধ এর ধরন কি?

যদি, অপরাধটি আর্থিক ক্ষতি বিষয়ক হয়; তবে, সমপরিমাণ অর্থ কোন সওয়াব এর প্রত্তাশা না করে কোন ভাল কাজে দিয়ে দিতে হবে এবং আল্লাহ-র কাছে মন থেকে ক্ষমা চাইতে হবে।

জনাব! একজন ব্যাক্তি ১০০৳ চুরি করায় তাকে যদি আপনি মাফ না করেন তাহলে আল্লাহ তাকে মাফ করবেন না। যদি তিনি অধিক আল্লাহর নিকট ক্ষমাপ্রার্থনা ও তওবা করেন সে কথা ভিন্ন।


আল্লাহ তাআলা বলেছেন, হে ঈমানদারগণ! তোমরা সকলে আল্লাহর কাছে তওবা (প্রত্যাবর্তন) কর, যাতে তোমরা সফলকাম হতে পার। (সূরা নূরঃ ৩১ আয়াত)


তোমরা নিজেদের প্রতিপালকের নিকট (পাপের জন্য) ক্ষমা প্রার্থনা কর, অতঃপর তার কাছে তওবা (প্রত্যাবর্তন) কর। (সূরা হূদঃ ৩ আয়াত)


তিনি আরো বলেছেন, হে ঈমানদারগণ! তোমরা আল্লাহর নিকট তওবা কর বিশুদ্ধ তওবা। (সূরা তাহরীমঃ ৮ আয়াত)


এছাড়া উলামা সম্প্রদায়ের উক্তি এই যে, প্রত্যেক পাপ থেকে তওবা করা চিরতরে প্রত্যাবর্তন করা ওয়াজেব।


পক্ষান্তরে যদি সেই পাপ মানুষের অধিকার সম্পর্কিত হয়, তাহলে তা গ্রহণীয় হওয়ার জন্য চারটি শর্ত আছে।


তার মধ্যে একটি হলো হকদারদের হক ফিরিয়ে দিতে হবে। যদি অবৈধ পন্থায় কারো মাল বা অন্য কিছু নিয়ে থাকে, তাহলে তা ফিরিয়ে দিতে হবে। অথবা তার কাছে ক্ষমা চেয়ে নিতে হবে।


করেছেন (204 পয়েন্ট)
যদি হক ফেরত দিতে না পারে?যেমন আপনি আমার নাম্বারে ভুলে ১০৳ দিছেন তবে আমি সেটা ফেরত দিই না অনেক বছর পর অনুতপ্ত হয়েছি তবে তখন আমি আপনাকে ফেরত দিবো কেমনে আপনাকে আমি চিনিও না।এমতাবস্থায় মাফ হবে?
করেছেন (3,722 পয়েন্ট)
এমতাবস্থায় আপনি ১০ টা.... কা মসজিদে তাঁর নামে দান করে দিবেন। তাহলে দানের সাওয়াব তার কাছে চলে যাবে আর আপনিও ক্ষমা পাবেন। তবে ভুক্তভোগী আপনার কাছে পরে টা.... কা দাবি করলে আপনি টা... কা দিতে বাধ্য। তখন দানের সাওয়াব আপনার কাছে চলে আসবে।
করেছেন (204 পয়েন্ট)
উনি তো আমাকে চিনেনই না তাহলে টাকা দাবী করবেন কেমনে?

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর

323,103 টি প্রশ্ন

413,687 টি উত্তর

128,185 টি মন্তব্য

177,936 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...