বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
50 জন দেখেছেন
"ধর্ম ও আধ্যাত্মিক বিশ্বাস" বিভাগে করেছেন (893 পয়েন্ট)

2 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (74 পয়েন্ট)
কোরবানির গোশত এক-তৃতীয়াংশ গরিবদের মধ্যে বিতরণ করতে হবে, এক-তৃতীয়াংশ আত্মীয়স্বজন ও প্রতিবেশীদের দিতে হবে এবং এক-তৃতীয়াংশ নিজের পরিবারের জন্য রাখতে হবে। প্রয়োজনের অধিক সবটুকু বিলিয়ে দেওয়াই যথার্থ। তবে প্রয়োজন বেশি থাকলে পুরোটাও রাখা যায়। বিশেষ কোনো ব্যক্তির জন্য অথবা বিশেষ কোনো উদ্দেশ্যে অল্প পরিমাণে দীর্ঘ সময়ের জন্যও সংরক্ষণ করে রাখা যাবে। সামর্থ্যবানের জন্য কোরবানি করা ওয়াজিব; তবে গোশত খাওয়া ওয়াজিব নয়। কোনো অসুবিধা না থাকলে কোরবানির গোশত খাওয়া ও খাওয়ানো সুন্নত।
0 টি পছন্দ
করেছেন (8,274 পয়েন্ট)

হ্যাঁ, যাকে খুশি তাকে দিতে পারেন।


আল্লাহ তাআলা বলেন, অতঃপর তোমরা তা হতে ভক্ষণ কর এবং নিঃস্ব অভাবগ্রস্তদেরকে ভক্ষণ করাও। (সূরা হাজ্জঃ ২৮ আয়াত)


অর্থাৎ, আর উঁটকে করেছি আল্লাহর প্রতীকসমূহের অন্যতম; তোমাদের জন্য তাতে মঙ্গল রয়েছে। সুতরাং সারিবদ্ধভাবে দন্ডায়মান অবস্থায় ওগুলির উপর (নহর করার সময়) তোমরা আল্লাহর নাম নাও। অতঃপর যখন ওরা কাত হয়ে পড়ে যায় তখন তোমরা তা হতে আহার কর এবং আহার করাও ধৈর্যশীল অভাবগ্রস্তকে ও যাচ্ঞাকারী অভাবগ্রস্তকে। এইভাবে আমি ওদেরকে তোমাদের অধীন করে দিয়েছি; যাতে তোমরা কৃতজ্ঞতা প্রকাশ কর। (সূরা হাজ্জঃ ৩৬ আয়াত)


প্রিয় নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, 'কুরবানীর গোশত' তোমরা খাও, জমা কর, এবং দান কর। তিনি আরো বলেন, তা খাও, খাওয়াও এবং জমা রাখ।


 উপরিউক্ত আয়াত বা হাদীসে খাওয়া, হাদিয়া দেওয়া ও দান করার কোন নির্দিষ্ট পরিমাণ বিবৃত হয়নি। তবে অধিকাংশ উলামাগণ মনে করেন যে, সমস্ত গোশতকে তিন ভাগ করে এক ভাগ খাওয়া, এক ভাগ আত্মীয়-স্বজনকে হাদিয়া দেওয়া এবং এক ভাগ গরীবদেরকে দান করা উত্তম।


কেউ চাইলে সে তার কুরবানীর সমস্ত গোশত বিতরণ করে দিতে পারে। আর তা করলে উক্ত আয়াতের বিরোধিতা হবে না। কারণ, ঐ আয়াতে নিজে খাওয়ার আদেশ হল মুস্তাহাব বা সুন্নত। সে যুগের মুশরিকরা তাদের কুরবানীর গোশত খেত না বলে মহান আল্লাহ উক্ত আদেশ দিয়ে মুসলিমদেরকে তা খাবার অনুমতি দিয়েছেন। অবশ্য কেউ কেউ খাওয়া ওয়াজেবও বলেছেন। সুতরাং কিছু খাওয়াই হল উত্তম।


কুরবানীর গোশত হতে কাফেরকে তার অভাব, আত্মীয়তা, প্রতিবেশি অথবা তাকে ইসলামের প্রতি অনুরাগী করার জন্য দেওয়া বৈধ। আর তা ইসলামের এক মহানুভবতা।


সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর
4 টি উত্তর
16 ডিসেম্বর 2018 "সাধারণ" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Badshah Niazul (4,908 পয়েন্ট)
1 উত্তর
28 জুলাই 2018 "ইসলাম" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন M.D.Kamruzzaman (418 পয়েন্ট)

323,109 টি প্রশ্ন

413,696 টি উত্তর

128,186 টি মন্তব্য

177,939 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...