বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
70 জন দেখেছেন
"ধর্ম ও আধ্যাত্মিক বিশ্বাস" বিভাগে করেছেন অজ্ঞাতকুলশীল

1 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (7,667 পয়েন্ট)
ইসলামে পুরুষ এবং মহিলার গোপনাঙ্গের চুল কাটার বিধান স্বভাবজাত সুন্নাত। ইবনু বায (রহঃ) এর মতে এটা সুন্নাতে মুআক্কাদাহ বা ওয়াজিব।

জনাব! ছেলেদের জন্য গোপনাঙ্গের অবাঞ্ছিত লোম কাটা উত্তম।

তবে মেয়েদের জন্য লোমনাশক ক্রিম বা লোশন ব্যবহার করা ভালো। এছাড়াও যে কোনো উপায়ে পরিষ্কার করলেও হয়ে যাবে।

ওয়াক্সিংয়ের মাধ্যমে লোম একেবারে গোড়া থেকে উঠে আসে। তাই যদি সেভ করেন বা কাঁচি দিয়ে ছেটে ফেলেন বা লোম নাশক ব্যবহার বা চিমটি দিয়ে উপড়ে ফেলেন এই সব গুলিই জায়েজ।

তবে উত্তম প্রতি সপ্তাহে একবার করে কেটে পরিস্কার করা।

ইসলাম মানুষের শরীরের অবাঞ্ছিত লোম, নখ ইত্যাদি বিনা ওজরে চল্লিশ দিন পর কাটাকে মাকরূহ তাহরীমি বা গোনাহর কাজ বলেছে।

এ মর্মে সাহাবী আনাস (রাঃ) বলেন,

অর্থাৎ, গোঁফ ছোট রাখা , নখ কাঁটা, বগলের লোম উপড়িয়ে ফেলা এবং নাভীর নিচের লোম চেঁছে ফেলার জন্যে আমাদেরকে সময়সীমা নির্দিষ্ট করে দেওয়া হয়েছিল যেন, আমরা তা করতে চল্লিশ দিনের অধিক দেরী না করি। (সহীহ মুসলিমঃ ২৫৮)

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

3 টি উত্তর
07 এপ্রিল "ইসলাম" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Md Masud Rana. (2,745 পয়েন্ট)

314,005 টি প্রশ্ন

403,547 টি উত্তর

124,058 টি মন্তব্য

173,857 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...