বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
63 জন দেখেছেন
"ধর্ম ও আধ্যাত্মিক বিশ্বাস" বিভাগে করেছেন (298 পয়েন্ট)
আমি টিভিতে দেখেছি মক্কা শরিফের ইমামেরা তারাবীর নামাজ পড়ানোর সময় বুকের ওপর হাত বাঁধে।আবার মদিনা শরিফের ইমামেরা তারাবী নামাজ ৮ রাকাত পড়ায়, যেখানে মক্কা শরিফে ঠিকই ২০ রাকাত নামাজ পড়ায়।এগুলোর সঠিক কারণ কি? অবশ্যই রেফারেন্স সহ উত্তর দিবেন।
করেছেন (733 পয়েন্ট)
১) মক্কায় বুকের উপর হাত বাঁধে।
২) মদীনায় ৮ রাকাত তারাবীহ পড়ায়।
#দুটি প্রশ্ন হতে কোনটা জানতে চান, নাকি দুটি উত্তরই জানতে চান?
করেছেন (298 পয়েন্ট)
দুটোর উত্তরই জানতে চাই।

1 উত্তর

+1 টি পছন্দ
করেছেন (10,147 পয়েন্ট)
তারাবীহ নামাজ কত রাকআত এটি একটি ইখতিলাফী অর্থাৎ মতবিরোধপূর্ণ মাসআলা।

কেউ বলেছেন ৩৯ রাকআত (তারাবীহ ৩৬ + বিতর ৩)

কেউ বলেছেন ২৯ রাকআত (তারাবীহ ২৬ + বিতর ৩)

কেউ বলেছেন ২৩ রাকআত (তারাবীহ ২০ + বিতর ৩)

কেউ বলেছেন ১৯ রাকআত (তারাবীহ ১৬ + বিতর ৩)

কেউ বলেছেন ১৩ রাকআত (তারাবীহ ১১ + বিতর ৩)

কেউ বলেছেন ১১ রাকআত (তারাবীহ ৮ + বিতর ৩)

২০ রাকআত তারাবীহ সালাতের পক্ষে দলীলঃ

বিতর ছাড়া ২০ রাকআত তারাবীহ সালাতের পক্ষে দলীল হল মুসান্নাফে আঃ রায্যাক হতে বর্ণিত ৭৭৩০ নং হাদীস, যেখানে বর্ণিত হয়েছেঃ

উমার (রাঃ) রমযানে উবাই ইবনে কাব ও তামীম আদদারীকে ইমামতিতে লোকদেরকে একুশ রাকআত সালাতের প্রতি জামাআতবদ্ধ করেছিলেন। (অর্থাৎ তারাবীহ ২০ ও বিতর ১ রাকআত)

আবদুল্লাহ ইবনে আব্বাস (রাঃ) বলেছেন যে, নাবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামর রাতের সালাত ছিল ১৩ রাকআত। (বুখারীঃ ১১৩৮; মুসলিমঃ ৭৬৪)

আয়িশাহ (রাঃ) বলেন, তিনি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম রমযান ও অন্য সময়ে (রাতে) ১১ রাকআতের অধিক সালাত আদায় করতেন না। (বুখারীঃ ২০১৩; মুসলিমঃ ৭৩৮) অর্থাৎ তারাবীহ ৮ রাকাআত এবং বিতর ৩ রাকাআত।

ইবনে ইয়াযিদ রাদিয়াল্লাহু আনহু বলেন, উমার ইবনু খাত্তাব রাদিয়াল্লাহু আনহু (তার দুই সঙ্গী সাহাবী) উবাই ইবনে কাব তামীম আদদারীকে এ মর্মে নির্দেশ দিলেন যে, তারা যেন লোকদেরকে নিয়ে (রমযানের রাতে) ১১ রাকআত কিয়ামুল্লাইল (অর্থাৎ তারাবীহর সালাত) আদায় করে। (মুয়াত্তা মালেকঃ ১/১১৫)

উল্লেখ্য যে, সৌদী আরবের মসজিদগুলোতে তারাবীহ ও বিতর মিলে ১১ বা ১৩ রাকআত পড়লেও মাক্কার হারামে ও মাদ্বীনার মসজিদে নববীতে তারাবীহ ২০ এবং বিতর ৩ মিলিয়ে মোট ২৩ রাকআত পড়ে থাকে। এর কারন আগেই বলেছি তারাবীহ নামাজ কত রাকআত এটি একটি ইখতিলাফী অর্থাৎ মতবিরোধপূর্ণ মাসআলা। অর্থাৎ দুই রকমের হাদিস-ই পাওয়া যায়।

তদুনুরুপ বুকের ওপর বা নাভির নীচে হাত বাঁধাও ইখতিলাফী অর্থাৎ মতবিরোধপূর্ণ মাসআলা। তো হাত যেখানেই বাঁধা হোক না কেন নামাজ হয়ে যাবে।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর
25 জুন 2015 "সিয়াম" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন MMR Mahfuz (82 পয়েন্ট)
1 উত্তর

342,295 টি প্রশ্ন

435,407 টি উত্তর

136,153 টি মন্তব্য

184,559 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...