বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
198 জন দেখেছেন
"প্রেম-ভালোবাসা" বিভাগে করেছেন অজ্ঞাতকুলশীল
পূনঃরায় খোলা
৬ মাস আগে আমি একটা ছেলের সাথে ব্রেক আপ করি। মূলত তার সন্দেহপ্রবণতার কারণে আমি তার সাথে সম্পর্ক ত্যাগ  করি।  কিন্তু সে বিভিন্নভাবে আমাকে বুঝানোর চেষ্টা করে।  সে বলে যে সে নাকি আমাকে সত্যি ভালোবাসে তাই সন্দেহ করে।  কিন্তু সে আমাকে  শত বুঝালেও  আমি তাকে না বলে দেই। কারণ আমি তার কাছে ফিরে  যেতে চাইনা।  কারণ আমার ধারণা ফিরে  গেলে সে আমাকে আবার সন্দেহ করবে। কিন্তু ইদানিং সে আমাকে বিভিন্নভাবে বিরক্ত করে।  ফোন করে কান্না করে।  মাঝে মাঝে গালাগাল করে। কেন আমি তার ভালোবাসা নিয়ে খেলা করেছি এই ধরণের প্রশ্ন করে। তাছাড়া সে ফেসবুকেও বিভিন্নধরনের ফেক আইডি খুলে আমাকে বিরক্ত করে।  এমনকি পরীক্ষার সময়ও সে আমাকে ফোন করে বিরক্ত করে।  

এই সমস্যা থেকে উত্তরণের উপায় কি ?

2 উত্তর

+4 টি পছন্দ
করেছেন (15,910 পয়েন্ট)
নির্বাচিত করেছেন
 
সর্বোত্তম উত্তর

আসলে আপু সত্যি কথা কি সত্যিকারের ভালোবাসার মধ্যে একটা হিংসা, অবিশ্বাস,সন্দেহ লুকিয়ে থাকে যা সত্যই ভালোবাসার মানুষ গুলোর মধ্যে নিহিত।  

তবে হ্যা আপনার কথা অনুযায়ী ছেলেটি আসলেই আপনাকে অনেক ভালোবাসে তাই সে চায় না আপনি অন্য ছেলের সাথে কথা বলেন বা অন্য কারো সাথে আড্ডা দেন। এটা কেউই চায়।
হ্যা আপু সে সত্যই কথাই বলেছে "আপনাকে সে সত্যি ভালোবাসে  বিধায় সন্ধেহ করে" কিন্তু এই সন্ধেহ কারো ভালোবাসা  কেরে নেয়  আবার কারো ভালোবাসা শক্ত ও বিশ্বাসী  হয়। আর আপনার প্রতি তার বিশ্বাস আর সন্দেহ দুইটাই  ছিলো বিধায় আপনাকে বার বার বোঝানোর চেস্টা করেছে কিন্তু তার জন্য আপনার মনে কোন ভালোবাসাই  জন্মালো না যদি আপনার মাঝে তার প্রতি ভালোবাসা থাকতো তাহলে কখনোই তাকে ছেড়ে যেতেন না।
আপু আপনি হয়তো জানেন যে দুইজন ছেলে মেয়ের মাঝে গভির ভালোবসা সৃষ্টি হলে ঐ ভালোবাসার মেয়েটি যদি তার ভালোবাসার মানুষের সাথে অন্য কোন মেয়ে কথা বলে তাহলে কিন্তু মেয়েটি রাঘ করবে বা সন্দেহ করবে ছেলেটির উপর। অণুরুপ ভাবে ছেলেটি যদি তার ভালোবাসার মানুষের সাথে অন্য কোন ছেলে কথা বলে তাহলে সেও কিন্থ মেয়েটির উপর রাঘ করবে বা সন্দেহ করবে।
কারন এখানে আমরা  কেউ চাই না যে   আমার ভালোবাসার মানুষটি প্রতিনিয়ত অন্য মেয়ের সাথে বা ছেলের সাথে কথা বলুক বা আড্ডা দেক।এতে সত্যিকারের ভালোবাসা প্রকাশ পায়  এখানে একে অপরের সন্ধেহ করলে তাহলে একে অপরে বোঝা পড়া করে সমস্যা মিটিয়ে নেওয়া যায়। কিন্তু তার মানে এই না যে সন্ধেহ করে বিধায় তাকে ছেড়ে দেই বা ব্রেকাব করি । 
তাই আমার মতে যা করেছেন আপনি অনেক ভুল করেছেন যদি পারেন তাহলে তাকে বুকে টানেন কারন সত্যিকারের ভালবাসার মধ্যে অনেক ঝগড়া ,অভিমান,খোব,জেদ,রাঘ,কান্না,বিদ্যমান থাকে যার জন্য ভালোবসা আরো বেশি প্রসারিত হয়।

জানি না আমি ছেলেটি আপনাকে কিসে  সন্ধেহ করেছিলো । তবে আমার বিশ্বাস যে আপনি একাধিক ছেলের সাথে প্রেম করেন না,ছেলেদের কে নিয়ে ভালোবাসার ছলোনা করেন না। আপনি একাধিক ছেলের সাথে প্রেম করেন না। →তবে মনে রাখবেন আপনি যেমন একজন মানুষ ছেলেরাও তেমনি একজন মানুষ দুই প্রানির মাঝে একটি পবিত্র মন থাকে যা একবার কারো প্রতারণা কারনে ভেঙ্গে গেলে মানুষ বেঁচে থাকার ইচ্ছা আকাঙ্খা হারিয়ে ফেলে ফলে তারা বিষ পান করে ,গলায় ফাঁস দেয় , ছাদ থেকে লাফিয়ে আত্মাহত্যা করে। 

তাই বলছি যদি আপনার মনে সত্যিই ছেলেটির প্রতি একটু ভালোবাসা থেকে থাকে তাহলে তাকে কাছে টাটুন। আর তার প্রতিভালোবাসা না থাকলে তার কাছ থেকে দুরে থাকুন এমন দুরে থাকবেন যাতে আপনার চেহারা সে কখনোই দেখতে না পায়।
মনে রাখবেন মানুষের মন ভাঙ্গা আরর মসজিদ ভাঙ্গা একই কথা কেনো না মানুষের মন গুলো মসজিদ ঘরের মতই পবিত্র।
আমি আশা করবো আমার কথা গুলো বুঝতে পারবেন। 
করেছেন (51 পয়েন্ট)
সম্পাদিত করেছেন
আসলে আমি আপনার সাথে এতক্ষন যে ঘটনা নিয়ে আলোচনা করলাম সেটা ছিল গত বছরের ঘটনা। তখন আমার বয়স মাত্র ১৭ বছর ছিল।  আমি তখন একাদশ শ্রেণীতে পড়তাম।  আমার কিছুদিন পরে বার্ষিক পরীক্ষা শুরু হবে এমন সময় ঘটে ছিল ঘটনাটি। ওই সময়টাতে উনি আমাকে প্রপোস  করেন।  আসলে ওই সময়টায় আমি প্রেম ভালোবাসার মানে বুঝতাম না। সেসময় উনার বয়স ছিল ২২ বছর।উনি তখন বরিশাল বি এম  কলেজে অনার্স তৃতীয় বর্ষে পড়তেন।  উল্লেখ্য  আমি পড়াশুনার পাশাপাশি একটা ছোট চাকরি করতাম।  উনি সবসময় আমার অফিসের  সামনে দাঁড়িয়ে থাকতো আমাকে নেওয়ার জন্য।  আমাকে সবসময় সন্দেহ করতো।  আমার ফেইসবুক আইডির পাসওয়ার্ড নিয়ে টানাটানি করতো। এইগুলো যে  সব ভালোবাসার পরিচায়ক আমি তখন বুঝতে পারিনি।  কেননা আমার এসব ব্যাপার বুঝার মতো বয়স তখন হয়নি। সে কারণে উনার এই ধরণের আচরণ আমার কাছে বিরক্তিকর মনে হতো। শুধু আমার মনে হতো যে উনি প্রাপ্তবয়স্ক মেয়েদের প্রেমে না পরে আমার মতো অপ্রাপ্তবয়স্ক মেয়ের প্রেমে পড়লো কেন ? কারণ একজন প্রাপ্তবয়স্ক পুরুষ কখনো অপ্রাপ্তবয়স্ক মেয়ের সাথে প্রেম করতে পারেনা।  কেননা সে ভালোকরে বুঝতে  পারে যে অপ্রাপ্তবয়স্ক মেয়েরা প্রেম বুঝে না। আমি উনাকে এই  ব্যাপারে বলেছিলাম।  উনি বলেন যে আজকাল ক্লাস ওয়ান এ পড়া বাচ্চারা প্রেম করে আর তুমি প্রেমের মানে বুঝ না।  উনার এই আচরণগুলো আমার কাছে শুধু আবেগ মনে হতো।  উনার জন্য আমার একাদশ শ্রেণীর বার্ষিক পরীক্ষার ফলাফল খারাপ হয়। আমি উনাকে ফোন করে প্রচন্ড বকা  দেই।  এবং বলি আমাকে আর ডিসটার্ব করতে না। তারপর উনি আমাকে ফোন করতো।  ফোন করে কান্না করতো। তাছাড়া উনার সন্দেহ এই সম্পর্ক ভাঙার কারণ ছিল।
এখন আমি এইচএসসি পরীক্ষা দিয়েছি।  এই পরীক্ষার সময়ও  উনি  আমাকে হরদমে বিরক্ত করেছেন।  কিন্তু আমি উনার সাথে কথা বলিনি। কারণ এখন আমি বুঝতে শিখেছি যে এইগুলো করে কোনো লাভ নেই. আমাকে এখন প্রতিষ্ঠিত হতে হবে।  জীবনে ভালো কিছু করলে অব্যশই ভালো ছেলেরা আমাকে পছন্দ করবে।
করেছেন (15,910 পয়েন্ট)
বাহ আপু আপনার কথা গুলো ভালোই লাগলো তবে আপনার এই কথা গুলো আমাকে আগেই জানিয়ে দিতেন তাহলে আমি আর আপনার ব্যপারে এতো কিছু ভাবতাম না বা বলতাম না। আমাকে মাফ করবেন sorry, হয়তো আমি আপনাকে না জেনে অনেক কিছুই বলে ফেলেছি তাই আমাকে ক্ষমা করবেন।
তবে আপু আপনি ভালো করেছেন এই সঠিক সিদ্ধান্ত টা নিয়ে। আপু আপনি লেখা পড়ায় মন দিন নিজেকে ভালো ভাবে গরে তুলুন।  বর্তমান সমাজে প্রেম ভালোবাসার নামে এগুলো  খারাপ ও নষ্ট এর দিকে ধাবিত হচ্ছে। তাই বলছি ভালো করে মনযোক দিয়ে লেখা পড়া করুন দেখবেন একজন ভালো মানে একজন স্বামী  উপহার পেয়েছেন যে কিনা আপনাকে শুধু আপনাকে অনেক ভালোবাসবে।

কিছু মনে করবেনবে না আপনার এই https://www.bissoy.com/1046750/ প্রশ্নে আমি খুব সুন্দর করে উত্তর দিতে চাইছিলাম কিন্তু দেখলাম আগে আপনি বেশ কয়েকটটা প্রেম কাহিনি নিয়ে প্রশ্ন করেছেন তাই আর উত্তর দেই নি।
আপু আপনি আপনার https://www.bissoy.com/1046750/ এই প্রশ্নে বলেছেন একজন ছেলে কে আপনার অনেক পছন্দ আপনি তাকে ভালোবাসেন  । কিন্ত আপনি তো এখন বলছেন প্রেম ভালোবাসা করে কোন লাভ নাই তাহলে আবার প্রেমে পরতে চাচ্ছেন কেনো বুঝলাম না।। তবে যাই হোক ইহা আপনার ব্যাক্তিগত ব্যপার। তবে আপু মনে রাখবেন যাকে একবার মন দিবেন বা যার মন একবার নিবেন সুধু তাকেই আপনার ভবিষ্যৎ এর জীবন সঙ্গী করে নিবেন। দেখবেন অনেক সুখ ও শান্তি পাবেন।  তাইই বলছি এই ছাত্র জীবনে এসবে নিজেকে জরাবেন না।
করেছেন (51 পয়েন্ট)
আসলে আপনি যে প্রশ্নের কথা এখানে উল্লেখ করলেন ওটা আমার কলেজে  ভর্তি হওয়ার আগের ঘটনা।  আমি একটা ছেলেকে পছন্দ করতাম।  কিন্তু আমাকে সে প্রায় বন্ধু দিয়ে অপমান করতো।  সে কারণে আমি তার সাথে কথা বলা বন্ধ করে দিয়েছি।  কারণ একটা মানুষ আমাকে তার বন্ধু দিয়ে অপমান করবে তারপরও  আমি তার সাথে কথা বলবো এমন মেয়ে আমি নই।  আমার মূল্য এত কম নয় যে একটা ছেলে তার বন্ধু দিয়ে আমাকে অপমান করলো আর আমি তার সাথে সম্পর্ক চালিয়ে যাবো। আর আমি আপনাকে যে ব্যাপারটি নিয়ে প্রশ্ন করেছি সেটা কলেজে ভর্তি  হওয়ার পর আমার সাথে ঘটেছে।
করেছেন (51 পয়েন্ট)
আর উনার সাথে কেন আমি সম্পর্ক রাখতে চাইনা সেটা আপনাকে পরিষ্কার করে খুলে বলছি।  উনি আমাকে প্রচন্ড সন্দেহ করতেন যেটা সহ্য করার মতো নয়।  যেমন আমি আপনাকে একটা উদাহরণ দেই। আমি একদিন আমার খালামনির সাথে টেলিফোনে  ১ ঘন্টা যাবৎ কথা বলছিলাম।  এমন সময় উনি ফোন দিলেন। বললেন যে এক ঘন্টা যাবৎ আমি ফোন দিচ্ছি তোমার ফোন ব্যাস্ত কেন ? আমি বললাম আমি খালামণির সাথে কথা বলছিলাম তাই তোমার ফোন ধরতে পারিনি। তারপরও  উনি আমাকে জিজ্ঞেস করছেন সত্যি করে বলো তুমি কার সাথে কথা বলছিলে?আমি উনাকে বার বার বুঝানোর চেষ্টা করলাম যে আমি আমার খালার সাথে কথা বলছিলাম।  কিন্তু উনি আমার কথা বিশ্বাস করতে চাননি।  আমার সেদিন এত খারাপ লেগেছিলো। আমি আর কিছু বলিনি উনাকে।
তাছাড়া উনার আরো একটা সমস্যা হচ্ছে উনি মহান আল্লাহকে বিশ্বাস করেননা।  যে ব্যাক্তি মহান আল্লাহকে বিশ্বাস করেননা সে যে আল্লাহর  সৃষ্টিকে বিশ্বাস করবেননা এইটাই স্বাভাবিক।
আচ্ছা বুঝলাম আমি স্মার্ট ছেলেদের সাথে কথা বলি তাই উনার খুব খারাপ লাগে।  কিন্তু আমি যখন দেখি ফেসবুকে উনি মেয়েদের সাথে ছবি তুলে আপলোড দেন আমার তখন খারাপ লাগেনা ? উনি ফেসবুকে অনেক মেয়ের সাথে সেলফি তুলে আপলোড দেন।  অনেক মেয়ের সাথে চ্যাট করেন।এমনকি রাস্তাঘাটে হাই  হ্যালো দিতে পর্যন্ত দেখেছি।  কিন্তু আমি কখনো এসব বিষয়কে পাত্তা দেইনি।  কারণ আমি বিশ্বাস করতাম যে উনি আমাকে ছেড়ে অন্য মেয়ের সাথে প্রেম করবেন না। সেজন্য আমি উনাকে কিছু বলতাম না। আর আমি মনে করতাম ওই মেয়েগুলো তার বন্ধু।
কিন্তু উনি আমাকে কেন বিশ্বাস করতে পারেননি ? আমারওতো  ছেলে বন্ধু থাকতে পারে।  আমিও তো উনার মতো তাদের সাথে হাই  হ্যালো করতে পারি।  তাই বলে উনি ধরে নিবেন যে ওই ছেলেগুলির সাথে আমার প্রেম আছে।  এটা কেমন যুক্তি ?উনি ফেসবুকে মেয়েদের সাথে চ্যাট করতে পারবেন আর আমি কিছুই করতে পারবো না এটা কেমন কথা ?
উনাকে আমি বলেছিলাম একটা ভালো মেয়ে জোগাড় করে দিতে যে কিনা  ফেসবুকে আমার সাথে কথা বলবে।  কিন্তু উনি করেননি। উল্টো উনি নিজেই মেয়েদের ফেইক  আইডি বানিয়ে আমার সাথে চ্যাট করেছেন।
এরকম একটা মানুষের সাথে সম্পর্ক রাখা  যায় আপনি বলেন ?
করেছেন (15,910 পয়েন্ট)
ও। হুম ব্যপারটা বুঝলাম। আসলে আপনি তো এতো কিছু প্রশ্নে বলেন নি তাই আপনার চাহিদা মত উত্তর দেওয়াও হয় নি। আপনি যে ভাবে প্রশ্ন করেছেন ঠিক সেভাবেই উত্তর দিয়েছিলাম। তবে হ্যা যা করেছেন ভালোই করেছেন  । আপনি এসবে না গিয়ে ভালো করে মনযোক দিয়ে বই পড়ুন।  বাবা মায়ের স্বপ্ন পূরন করেন। আপনার জন্য শুভ কামনা রইলো।  তবে হ্যা   আপনি আমার কথায় রাঘ করলে বা মনে কষ্ট পেলে আমাকে মাফ করবেন কারন আমি তো আপনার জীবন কাহিনী জান্তাম না।  আপনার উপস্থিত ব্যখ্যা অনুযায়ী উত্তর দিয়েছিলাম।
আপনার পরবর্তী সমস্যা গুলো আমাদের জানিয়ে দিন চেস্টা করবো সঠিক পরামর্শ দিতে।
+1 টি পছন্দ
করেছেন (209 পয়েন্ট)
ছেলে আপনাকে ভালোবাসে কিন্তু এইটা আবেগ এর ভালোবাসা যা বেশি দিন থাকবে না। আপনাকে ও এখন বিরক্ত করছে বিভিন্ন ভাবে এই কথা গুলা ফ্যামিলির কারো কাছে বলুন। আর পারলে ছেলেকে বুঝান। যদি না বুঝে তাহলেই ফ্যামিলিকে বলবেন । আর অর সন্দেহ ভাবটা যাবে না ৷তাই আপনি সরে এসেছেন এইটা আমার মত ভালো  করেছেন। আর আপনার ফেসবুক আইডির সিকিউরিটি বারান যাতে অপরিচিত কেও রিকুয়েষ্ট আর মেজেস না দিতে পারে। না পারলে বলবেন হেল্প করার চেষ্টা করব।    

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর
21 অক্টোবর 2018 "স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন রবিন3222 (20 পয়েন্ট)
2 টি উত্তর
05 এপ্রিল 2017 "আইন" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন হাফেজ শাহাদাত হুসাইন (709 পয়েন্ট)
2 টি উত্তর
28 সেপ্টেম্বর "স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Md.Al Rabbi don (44 পয়েন্ট)
1 উত্তর
07 জুন "নিত্য ঝুট ঝামেলা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন অজ্ঞাতকুলশীল

342,727 টি প্রশ্ন

435,820 টি উত্তর

136,305 টি মন্তব্য

184,701 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...