বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
33 জন দেখেছেন
"প্রেম-ভালোবাসা" বিভাগে করেছেন (8 পয়েন্ট)
2010 সালে একটা ছেলের সাথে আমার খুব ভালো বন্ধুত্ব হয়.  সে আর আমি একই জায়গায় চাকরি করি. কিছুদিন পর সে আমায় প্রপোস করে আমিও রাজি হয়ে যাই.  আমাদের ভালোবাসার সম্পর্ক ভালোই চলছিল কিন্তু হটাৎ 2012 সালে অন্য একটা মেয়ে আমাদের মাঝখানে আসে. আসতে আসতে তাকে আমার বয়ফ্রেন্ড নাকি ভালোবেসে ফেলে আর তাকে প্রপোস করে. সেই মেয়েটাও আমাদের অফিস এই চাকরি করে. সেই মেয়েটাই আমাকে জানায় যে ও নাকি মেয়েটাকে প্রপোস করেছে. তখন আমার বয়ফ্রেন্ড জানার পর আমার থেকে ক্ষমাও চায় আমি ক্ষমা করে দিয়েছিলাম আর বলেছিলাম আবার আমরা আমাদের সম্পর্ক টা ঠিক করে নিতে চাই কিন্তু তখন আমার বয়ফ্রেন্ড বলে যে ওর বাড়িতে প্রব্লেম হচ্ছে তাই ও আর সম্পর্ক টা রাখতে পারবেনা আমি প্রথমে সেটা মেনে নিয়ে বলি যে ঠিক আছে আমরা মন থেকে তো দুজন দুজন কে ভলোবাসতেই পারি কিন্তু তারপর আসতে আসতে বুঝতে পারি যে ও আমায় মিথ্যে বলেছে আর ওই মেয়েটার সাথে সম্পর্ক আছে. তখন ওর সাথে আমি আর কথাই বলা বন্ধ করে দি. তখন খুব ভেঙে পড়ি খুব কান্নাকাটি করতাম . সেসময় অন্য একটা ছেলের সাথে আমার পরিচয় হয় তাকে সব কিছু বলি তারপর সেই ছেলেটার সাথে আসতে আসতে ভালোবাসায় জড়িয়ে পড়ি. এরপর 2016 সাল এ হটাৎ একদিন নিজে থেকে টেক্সট করে আর তার পর থেকে আবার কথা বলতে শুরু করে. আমার নতুন বয়ফ্রেন্ড আমায় ভালোবাসতো খুব ই কিন্তু আমার কোথাও যেন আগের বয়ফ্রেন্ড এর প্রতি টান টা থেকেই যায় তাই ওর সাথে কথা বলতে বলতে আবার যেন কেমন টান অনুভব করতে থাকি . কিন্তু তখন তাকে এটাও বলি যে আমার এখনকার বয়ফ্রেন্ড কে আমি ছাড়তে পারবোনা ও খুব ভালোবাসে আমায়.  সেটা জেনেও ও আমার সাথে কথা বলে আর এও বলে যে অন্যায় করেছে আবার আমায় ফিরে পেতে 

 চায় ওর এইসব আবেগের কথা শুনে আমিও কেমন ওকে আবার ভালোবেসে ফেলি আগের থেকেও বেশি. কিন্তু এখনকার বয়ফ্রেন্ড কে সেটা যে বলতে পারবোনা সেটাও বলি ওকে কিন্তু ইচ্ছা করেই এখনকার বয়ফ্রেন্ড এর সাথে যোগাযোগ কমাতে থাকি কথা বলাও কমিয়ে দিতে থাকি আর চেষ্টা করি ওর মতো করে চলার. কিন্তু সে টেক্সট করলে পুরো ইগনোর করতে পারিনা একদম. আর  সেটাই ওর খুব অপছন্দ রাগারাগি ও করতো খুব. তারপর হটাৎ ই একদিন দেখি সেই মেয়েটার সাথে ও আবার কথা বলছে গল্প করছে এমনকি একটা ফিস্ট এ গিয়ে গল্প করেছে সেখানে অবশ্য আমি যেতে পারিনি. যাই হোক সেটা শুনে আমি ভীষন ভাবে রিএক্ট করে ফেলি আর এটাও বলে ফেলি যে আমি insecure ফীল করছি তোমার কাছে আর eটাও বলে ফেলি যে আমার তোমার সাথে না থেকে ওর সাথে থাকলে অন্তত এরকম insecure ফীল করতে হতোনা. সেটাতে ও খুব ই কষ্ট পায় আঘাত পায় আর আমায় বলে যে সেই মেয়েটা ওকে প্রপোস করেছিলো আবার বাট ও আমাদের কথা সবটা বলে আর বলে বন্ধুত্ব ছাড়া তার সাথে আর কিছুই রাখতে পারবেনা কিন্তু আমি ওকে অনেক বাজে কথাই বলে ফেলি না জেনে যদিও.  কিন্তু ও যে এতটা আঘাত পেয়েছে সেটা আমায় বুঝতে দেয়নি নরমাল কথা জাস্ট বলতে শুরু করে আর আমি খালি ভাবতে থাকি আবার ওই মেয়েটার সাথে সম্পর্ক হয়েছে নিশ্চই.  তাই আমিও খারাপ বেহেভিওর করতে শুরু করি. কিন্তু ও কেন এমন করছে  দিনের পর দিন সেটা জিজ্ঞাসা করতে প্রথমে কিছু বলেনি তারপর ওর কথা শুনে বোঝা  যায় যে ও ভাবছে আমি এখনো ওই বয়ফ্রেন্ড tar সাথে ভালোবাসার সম্পর্ক রেখেছি অনেকদিন ধরেই আর ওকে মিথ্যে বলে গেছি সমানে. নাহলে এইসব কথা বলতে পারতাম না. কিন্তু আমি ওকে কতবার বলার চেষ্টা করেছি যে তুমি ভুল ভাবছো কিন্তু সেটা ও শুনতেই চায়না বলে যে আমি ওরকম করি নিজে বলে নাকি ওকেও সন্দেহ করছি যে ও আমার সাথে আবার ওই মেয়েটার সাথেও সম্পর্ক রাখছে. তারপর ওকে হাজার বলেও কিছু লাভ হয়নি. ওর মনের ভুল কিছুতেই ভাঙাতে পারছিনা. ও আমায় বিশ্বাস ঘাতক ভাবছে খালি. কিন্তু এটাও বলেছে যে ও আমাকে কোনদিন ও অস্বীকার করতে পারবেনা কোনোভাবেই তবে আগের মতো করে আর ওর সবটা দিতে পারবেনা. এখন ওর সাথে ওই নরমাল কথাবার্তা হয় মাঝে সাঝে ফোন এ টুকটাক কথা বার্তা হয় একটু আবেগের কথা বলতে গেলেই কথা ঘুরিয়ে দেয়.  আমি বুঝে উঠতে পারছিনা কিকরে ওকে আবার ফিরে পাবো. আমি ওকে ভুলে কোনোদিন ও থাকতে পারবোনা.আবার আগের মতো করে ওকে পেতে চাই. আমি আমার অন্যায় সব স্বীকার করতে চাই কিন্তু ও শুনতেই চায়না বলে এসব থাক আমি তোমায় আর আমাদের সম্পর্ক  কে সন্মান করি তাই ঐসব না বলে এমনি কথা বলাই ভালো. কি করে ওর ভালোবাসা ফিরে পাবো বুঝে উঠতে পারছিনা. দয়া করে সাহায্য করুন কেউ.  ওকে ছাড়া আমি সত্যি থাকতে পারবোনা.. প্লিজ প্লিজ প্লিজ সাহায্য করুন.. .

2 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (5,876 পয়েন্ট)
আপনি তার সম্পর্কে খোজ নিন। এটি জানার চেষ্টা করুন যে সে অন্য কোনো রিলেশনশিপে জড়িত আছে কিনা। যদি সে অন্য কারোর কাছে গিয়ে সুখি থাকে তাহলে আপনার ভাগ্যকে মেনে নেয়া উচিৎ।  আর যদি সে এমন কোনো রিলেশনশিপ এ না থাকেন,তাহলে আপনি এটা জানার চেষ্টা করুন যে সে কেন আপনার সাথে এমনটি করছে। আপনি কারণ গুলি খুজে বার করুন যেগুলির জন্য সে আপনার কাছ থেকে সরে আসতে চাইছে। কারণ খুজে নিজেকে তার মনের মত করে গড়ূন। তাকে সময় দিন। তার ভাল লাগা খারাপ লাগা গুলি বোঝার চেষ্টা করুন।আপনি তার মানসিকতা বোঝার চেষ্টা করুন। আপনি সামনাসামনি তার সাথে দেখা করুন এবং ব্যাপারটি নিয়ে বিস্তারিত কথা বলুন,দেখুন সে কি বলতে চাচ্ছে।
0 টি পছন্দ
করেছেন (13,954 পয়েন্ট)
আপনার পুরো গল্পটা আমি সময় নিয়ে পড়লাম এবং

যতটা সম্ভব বোঝার চেষ্টা করেছি। 

একটি ভালবাসার সম্পর্ক শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত এমন হাজারো

বাস্তব মানুষের ভালবাসার গল্প দেখেছি এবং অভিজ্ঞতা 

লাভ করেছি,  সেই অভিজ্ঞতার আলোকে বলছি আপনার 

পরবর্তী জীবনে সুখী হওয়ার জন্য বা সুন্দর একটি জীবন 

যাপনের জন্য এই X friend টা কে বিসর্জন দিতে হবে।

জীবনে ভালো কিছু পেতে হলে অনেক কিছু ত্যাগ করতে

হয় যেমন  এটা। আপাতোতো দৃষ্টিতে আমার উপদেশ মন্দ/

অপছন্দ হলেও যদি তাকে বিয়ে করেন তারপর

 বিবাহিত জীবনের পরে ঠিকই এক সময় মনে হবে যে এই 

উপদেশটাই সঠিক ছিলো।  আপনি এখন ভালবাসায় অন্ধ

হয়ে আছেন যা স্বাভাবিক, আপনার জায়গায় অন্য কেউ 

থাকলেও আপনি যেটা করতে যাচ্ছেন সেটাই করতে 

চাইতো। আমি ভবিষ্যৎ এর কথা ভেবে এই উপদেশটি 

আপনাকে দিলাম,  আপাতোতো দৃষ্টিতে বিবাহের পূর্বে 

কোনো সমস্যা নেই। 
জুনায়েত ইসলাম: দেশ ও মানুষের সেবায় নিজেকে আত্মনিয়োগ করতে সদা প্রস্তুত। শৃঙ্খলা ও ফিটনেস সম্পর্কে খুব সচেতন এবং প্রচন্ড দেশ প্রেমী এজন্যই দেশ রক্ষার মতো পবিত্র দায়িত্ব বেছে নিয়েছেন পেশাগত জীবনে। জ্ঞানার্জনের লক্ষ্যে ও পরোপকারের স্বার্থে দীর্ঘদিন থেকেই বিস্ময় অ্যানসারের সাথে অঙ্গাঅঙ্গি ভাবে জড়িত।
টি উত্তর

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর
19 এপ্রিল 2018 "প্রেম-ভালোবাসা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Rs Tanvir (6 পয়েন্ট)

294,006 টি প্রশ্ন

380,631 টি উত্তর

115,071 টি মন্তব্য

161,451 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...