বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
267 জন দেখেছেন
"ধর্ম ও আধ্যাত্মিক বিশ্বাস" বিভাগে করেছেন (48 পয়েন্ট)

4 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (10,120 পয়েন্ট)
নির্বাচিত করেছেন
 
সর্বোত্তম উত্তর
বীর্যপাতের ফলে গোসল ওয়াজিব হয়। হস্থমৈথুন করার পর গোসল না করলে শরীর নাপাক থাকে। আর এক্ষেত্রে শুধু অযু করে নামাজ আদায় করা যাবে না।

আলী (রাঃ) হতে বর্ণিত আছে, তিনি বলেন, আমি নাবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে বীর্যরস প্রসঙ্গে প্রশ্ন করলাম। তিনি বলেনঃ বীর্যরস বের হলে অযু করতে হবে এবং বীর্যপাত হলে গোসল করতে হবে।

রেফারেন্সঃ সূনান আত তিরমিজী হাদিস নম্বরঃ ১১৪, সূনান নাসাঈ হাদিস নম্বরঃ ১৯৩ !!!

সকল বিশেষজ্ঞ সাহাবা এবং তাবিঈদের এটাই মত যে, বীর্যরস বের হলে অযু এবং বীর্যপাত হলে গোসল করতে হবে।
+1 টি পছন্দ
করেছেন (4,491 পয়েন্ট)

উত্তেজনার সাথে বীর্যপাত হলেই গোসল করা আবশ্যক। তাই হস্তমৈথুন দ্বারা উত্তেজনার সাথে বীর্যপাত হলে, অবশ্যই গোসল করে নামায পড়তে হবে। শুধু অজু করার দ্বারা পবিত্রতা অর্জিত হবে না।


দলীলঃ

إِنَّمَا الْمَاءُ مِنَ الْمَاءِ

তথা পানি [বের হবার দ্বারা] পানি {শরীরে ঢালা তথা গোসল] আবশ্যক হয়। {সহীহ মুসলিম, হাদীস নং-৩৪৩}

সংগৃহীত


+1 টি পছন্দ
করেছেন (1,079 পয়েন্ট)
উত্তেজনাবশত বীর্যপাত ঘটলে অবশ্যই গোসল ফরয হয়ে যায়।আপনি হস্তমৈথুন করার পর আপনাকে অবশ্যই ফরয গোসল করতে হবে আর নাহলে নামায,রোযা কোনটাই কবুল হবে না।কিন্তু পায়খানা-প্রস্রাব করার সময় উত্তেজনা ছাড়া বীর্যপাত হলে গোসল ফরয হয় না।এরপর আপনি শুধু ওযূ করে নামায আদায় করতে পারবেন।কিন্তু স্বপ্নদোষ হলে উত্তেজনা থাকুক বা না থাকুক বীর্যপাত ঘটলেই গোসল ফরয হয়ে যাবে।        
0 টি পছন্দ
করেছেন (2,763 পয়েন্ট)
হস্তমৈথুন করার পর যদি বীর্যপাত ঘটানো হয়। তাহলে আপনাকে অবশ্যই ফরজ গোসল আদায় করতে হবে। আর তা না হলে শুধুমাত্র ওযু করে নামায আদায় করা যাবে।
যে সব কারণে গোসল ফরজ হয়ঃ
১. স্বপ্নদোষ বা উত্তেজনাবশত বীর্যপাত হলে।
২. সহবাসে (সহবাসে বীর্যপাত হোক আর নাই হোক)।
৩. মেয়েদের হায়েয-নিফাস শেষ হলে।
৪. ইসলাম গ্রহন করলে (নব-মুসলিম হলে)।
ফরজ গোসল (বাধ্যতামূলক)। ইসলামের পরিভাষায়, গোসল হল সমস্ত দেহ ধৌত করার মাধ্যমে পূর্ণ পবিত্রতা অর্জনের একটি পন্থা। কথিপয় ধর্মীয় উপাসনা এবং আচার-আনুষ্ঠান পালনের পূর্বশর্ত হচ্ছে গোসল। সকল প্রাপ্তবয়স্ক মোসলমান নর-নারীর যৌনসঙ্গম , যৌনস্থলন (যেমন : বির্যপাত), রজস্রাবঃ সমাপ্তির পর, সন্তান প্রসবের পর এবং স্বাভাবিক কারণে মৃত্যুর পর গোসল করা ফরজ (বাধ্যতামূলক) হয়।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

341,683 টি প্রশ্ন

434,845 টি উত্তর

135,957 টি মন্তব্য

184,324 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...