বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
89 জন দেখেছেন
"ইসলাম" বিভাগে করেছেন (20 পয়েন্ট)
বিভাগ পূনঃনির্ধারিত করেছেন
মদ খাওয়া তো হারাম। তাহলে, জান্নাতে মদ খাওয়া হালাল কেন?

2 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (267 পয়েন্ট)
আল কোরআনে ইরশাদ হচ্ছে-
ওয়া সাকাহুম রাব্বুহুম শারাবান তাহুরা।
অর্থঃ এবং তাদের রব তাদেরকে পবিত্র শরাব( পবিত্র পানীয়) পান করাবেন। (সূরা আদ দাহর, আয়াত-২১)
এ আয়াত হতে জানা গেল, যারা বেহেশতবাসী অথবা খোদার ইশকে পাগল তাদেরকে বেহেশতে শরাবান তাহুরা পান করানো হবে।
শরাব মানে মদ বা পানীয়। তাহুরা মানে পবিত্র। সুতরাং অভিধানিক অর্থে পবিত্র পানীয় বা পবিত্র মদকে শরাবান তহুরা বলে।



জান্নাতের মধ্যে হারাম-হালাল বলতে কিছুই থাকবে না। কারণ, শরিয়াহ হলো দুনিয়ার জন্য। ইসলামের যে বিধিবিধানগুলো আল্লাহতায়ালা বান্দাদের জন্য দিয়েছেন, এগুলো পরিপূর্ণ করে দিয়েছেন দুনিয়াতেই। ইসলাম যে বিধানগুলো নিয়ে এসেছে, এটা পরিপূর্ণ বিধান। এটা দুনিয়ার জন্য। এটি দুনিয়ায় কার্যকর হবে। বরং আল্লাহ জান্নাতকে তাঁর নেয়ামত দিয়ে এত অনাবিল শান্তি ও সুন্দর করেছেন, যাতে করে আল্লাহর বান্দাগণ কোনো ধরনের ভয়ে থাকবে না। এরপর তাদের দুশ্চিন্তা বলতে কোনো জিনিস থাকবে না। তাদের জন্য অতিরিক্ত কী থাকবে, আল্লাহতায়ালা সেটা বলে দিয়েছেন, যে ‘তাদের মন যা চাইবে তার সবকিছু আল্লাহ তাদের জন্য রেখে দেবেন এবং যা তারা দাবি করবে, যা তারা করতে চায় আল্লাহ সবটাই তাদের জন্য দিয়ে দেবেন।’ সুতরাং, জান্নাতের মধ্যে হারাম-হালালের মাসয়ালা আসবে না।

এ বিষয়টি চিন্তা করার কোনো দরকার নেই। শুধু একটাই চিন্তা করা দরকার সেটা হচ্ছে, আমাদের জান্নাতে যাওয়ার পথ বের করা দরকার। জান্নাতের পথে চলতে পারলেই আমরা সবচেয়ে বেশি উপকৃত হব। জান্নাতের ভেতরের বিষয়টি এখন আল্লাহতায়ালার জন্য ছেড়ে দেন। আল্লাহ অবশ্যই বান্দাদের জন্য এমন ব্যবস্থা করেছেন যে, সে ব্যবস্থা সত্যিকার অর্থে বান্দাদের জন্য অনেক অনেক কিছু, যা বান্দা কোনো দিন চিন্তাও করতে পারবে না। তথ্যা সুত্র ntvbd
0 টি পছন্দ
করেছেন (4,777 পয়েন্ট)

#শারাবান তাহুরা, জান্নাতীদের জন্য একটি বিশেষ পানীয় যা তাদেরকে পান করার জন্য প্রদান করা হবে। এটি একটি সুস্বাদু পানীয় যা খেয়ে জান্নাতীগণ ‍তৃপ্তিবোধ করবে।  হযরত আবু কেলাবা এবং ইবরাহীম রহ.-এর বর্ণনায় রয়েছে, জান্নাতের শরাবকে 'শারাবান তাহুরা' বলা হয়েছে, কেননা তা পেশাবে পরিণত হবে না; বরং মেশকের মত সুঘ্রাণযুক্ত ঘাম হয়ে বের হয়ে যাবে। এর পদ্ধতি হলো, জান্নাতীরা যখন খাওয়া দাওয়া শেষ করবে তখন তাদের সামনে শরাব পেশ করা হবে। তা পান করলে তাদের পেট পরিস্কার হবে। -তাফসীরে রাযী, ১৬/২৩৬, তাফসীরে বাগাবী ৮৭২, তাফসীরে মাফাতীহুল গায়েব ৩০/২২৪

# দুনিয়ার মদ মানুষের তৈরি এবং তাতে হারাম দ্রব্য মিশ্রিত তাই তা খাওয়া অবৈধ। কিন্তু জান্নাতে তৈরি মদ হবে স্বয়ং মহান আল্লাহ তাআলা কতৃর্ক বানান এবং পবিত্র বস্তুর সংমিশ্রণ তাই জান্নাতী মদ খাওয়া হালাল হবে। -সূরা ইনসান, ২১

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

0 টি উত্তর
07 মার্চ "সাধারণ" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Mehedi09 (11 পয়েন্ট)

306,879 টি প্রশ্ন

395,771 টি উত্তর

120,885 টি মন্তব্য

170,039 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...